রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বৈশ্বিক উষ্ণতা-

ইউরোপে প্রাণঘাতি তাপপ্রবাহ

ইউরোপে প্রাণঘাতি তাপপ্রবাহ

চলতি বছরে নানা ধরনের প্রাকৃতিক বিপর্যয় দেখেছে বিশ্ব। যার মধ্যে উল্লেখ করার মতো হচ্ছে তাপদাহ। এ দুর্যোগটি নতুন করে আবারও মানবসত্ত্বার হুমকির কারণ হিসেবে দাঁড়িয়েছে। চলতি বছর এখন পর্যন্ত ইউরোপে অন্তত ১৫ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবজনিত বাড়তি তাপমাত্রার কারণে। গত সোমবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এ খবর জানিয়েছে।

সংস্থাটি জানায়, জুন থেকে আগস্ট পর্যন্ত তিন মাস ছিল ইউরোপে সবচেয়ে উষ্ণতম মাস। ব্যতিক্রমীভাবে উচ্চ এ তাপমাত্রার কারণে মধ্যযুগের পর ইউরোপে সবচেয়ে খারাপ খরা দেখা দিয়েছে এবার। তবে ভিন্ন তথ্য দিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি। এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাড়তি তাপমাত্রার কারণে জুন থেকে জুলাইয়ের মধ্যে ইউরোপে প্রায় ২৪ হাজার অতিরিক্ত মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এ সময়ে ব্রিটেনে সর্বোচ্চ ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস (১০৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট) তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। আবহাওয়ার কারণে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে স্পেন এবং জার্মানি।

হ্যান্স ক্লুজ বলেন, গ্রীষ্মের তিন মাসে স্পেনে প্রায় ৪ হাজার, পর্তুগালে এক হাজারের বেশি, যুক্তরাজ্যে ৩ হাজার ২০০-এর বেশি এবং জার্মানিতে প্রায় ৪ হাজার ৫০০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে দেশগুলোর স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। তিনি বলেন, আরও অনেক দেশ বাড়তি তাপ সম্পর্কিত মৃত্যুর বিষয়ে তথ্য দিয়েছে। ফলে মৃত্যুর এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

পুরো ইউরোপে শুষ্ক মৌসুমে ঐতিহাসিক এ তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণে দাবানলের তীব্রতা বেড়েছে, বিদ্যুৎ সরবরাহে প্রচণ্ড চাপ এবং ফসল উৎপাদনে সমস্যা সৃষ্টি করেছে। মিশরে জাতিসংঘের জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলনে এ বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে ডব্লিউএইচও বলেছে, আরও বেশি সংখ্যক দেশ তাপের কারণে অতিরিক্ত মৃত্যুর তথ্য রিপোর্ট করায় প্রাণহানির এই সংখ্যা বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ  যাত্রীর ব্যাগে ৯ লাখ সিগারেট

আনন্দবাজার/শহক

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন