সোমবার, ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
কুষ্টিয়ায় নৌকা ১ স্বতন্ত্র ৩

সাবেক ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের কাছে জাসদ সভাপতির পরাজয়

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুষ্টিয়া-২ (মিরপুর – ভেড়ামারা) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ১৪ দলীয় জোটের শরীক জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু (নৌকা) নির্বাচন করে স্বতন্ত্র প্রার্থী কামারুল আরেফিন (ট্রাক) এর কাছে ২৩ হাজার ৩৫৪ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী ১ লক্ষ ১৫ হাজর ৭৯৯ ভোট ভোট ইনু ৯২ হাজার ৪৪৫ ভোট পেয়েছেন।

হাসানুল হক ইনু জাসদ সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় পর ১৯৯১, ১৯৯৬ ও ২০০১ সালের নির্বাচনে বড় ব্যবধানে পরাজিত হয়। এরপর ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগের মহাজোট’র প্রার্থী হয়ে নিজ দলের মশাল প্রতীক বাদ দিয়ে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করে একবার বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় সহ তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তিন মেয়াদে ১৫ বছর সংসদ সদস্য হয়ে নিজ নির্বাচিত এলাকায় বড় কোন উন্নয়ন করতে পারিনাই এমন অভিযোগ সহ নানা কারনে স্থানীয় আওয়ামী লীগের সাথে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পরেন। দুই দলের দ্বন্দ্বে প্রাণ দিতে হয়েছে একাধিক ব্যক্তির। এর ফলে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের চরম তোপের মুখে পড়েন। ইনু কে চ্যালেঞ্জ করে মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, মিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ করে কামারুল আরেফিন স্বতন্ত্র প্রার্থী হন। তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ায় আওয়ামী লীগের একটি বড় অংশ তারসাথে কাজ করে। সাধারন মানুষ স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে সাড়া দেয়। কামারুল আরেফিন এর আগে ২০১১ সালে মিরপুর উপজেলার সদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। এরপর চেয়ারম্যান পদ থেকে অব্যাহতি দিয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচন করে নির্বাচিত হন। জনপ্রিয় মানুষটি একবার দেশ সেরা উপজেলা চেয়ারম্যান হয়েছিলেন। দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে তিনি বলেন, আমি শুকরিয়া আদায় করি আল্লাহর দরবারে। উপজেলা চেয়ারম্যান পদ ছেড়ে আমি নির্বাচন করতে এসেছিলাম। জনগণ আমাকে স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে ভোট দিয়ে আমার স্বপ্ন বাস্তবে রুপ দিয়েছে। আমি তাদের দেনা কখনো শোধ করতে পারবোনা। আমি জনতার নেতা হিসেবে মিরপুর ভেড়ামারাবাসীর কাছে থাকতে চাই।

আরও পড়ুনঃ  শিল্প মন্ত্রণালয়ের এডিপি বাস্তবায়ন ৬৩ ভাগ

এ ছাড়া জেলার বাকি তিনটি আসনে কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর) আসনে আওয়ামী লীগ নেতা সাবেক এমপি স্বতন্ত্র প্রার্থী রেজাউল হক ট্রাক প্রতীকে ৮৯২৭৪ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী ঈগল প্রতীকের নাজমূল হক পেয়েছেন ৫৩১০৫ ভোট ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী আঃকাঃমঃ সরওয়ার জাহান বাদশা (নৌকা) ৪৮৯৬১ ভোট।

কুষ্টিয়া-৩ (সদর) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক নৌকা মাহবুব উল আলম হানিফ নৌকা প্রতিক নিয়ে ১২৭৮০৩ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী ঈগল প্রতীকের পারভেজ আনোয়ার পেয়েছেন ৪২১৮১ ভোট। কুষ্টিয়া-৪ (কুমারখালী-খোকসা) আসনে ট্রাক প্রতীকে আওয়ামী লীগ নেতা সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুর রউফ পেয়েছেন ৯৮০৪১ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকা প্রতীকে সেলিম আলতাফ জর্জ পেয়েছেন ৮০১১১ ভোট।

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন