বৃহস্পতিবার, ৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইভ্যালির রাসেল ও নাসরিনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

ইভ্যালির রাসেল ও নাসরিনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেল ও প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান তাঁর স্ত্রী শামীমা নাসরিনের বিরুদ্ধে চেক প্রতারণার তিন মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

সোমবার (০৪ মার্চ ) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ফারাহ দিবা ছন্দা পৃথকভাবে এই আদেশ দেন। বাদীপক্ষের আইনজীবী সাকিবুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত ৪ ফেব্রুয়ারি চেক প্রতারণার অভিযোগে ঢাকার আদালতে রাসেল ও তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে পৃথক তিনটি চেক প্রতারণার মামলা করেন মাইন উদ্দিন, তানভীর আহমেদ ও তৌফিক মাহমুদ। আদালত তিনটি মামলা আমলে নিয়ে দুজনকে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করা হয়।

আজ (সোমবার) আদালতে হাজির না হওয়ায় তাঁদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

জানা যায়, ভুক্তভোগী মাইন উদ্দিনের অভিযোগ একটি মোটরসাইকেল কেনার জন্য ২০২১ সালের ২৬ মার্চ তিনি ইভ্যালিকে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা পরিশোধ করেন। কিন্তু ইভ্যালি তাঁকে মোটরসাইকেল বুঝিয়ে দেয়নি। পরে একটি চেক দিয়েছিল ইভ্যালি। সেই চেক ব্যাংকের কাছ থেকে প্রত্যাখ্যাত হয়।

ভুক্তভোগী অন্য দুজনও মোটরসাইকেল কেনার জন্য এভাবে ইভ্যালিকে টাকা দেন। মোটরসাইকেলও দেয়নি, টাকাও ফেরত দেয়নি ইভ্যালি। চেক দেওয়ার পরে ওই চেক ব্যাংক কর্তৃক প্রত্যাখ্যাত হয়। পরে ওই দুজনও মামলা করেন।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বাসা থেকে রাসেল ও শামীমাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গত বছরের ১৯ ডিসেম্বর রাসেল জামিনে মুক্তি পান। তাঁর স্ত্রীও জামিনে মুক্তি পান।

Print Friendly, PDF & Email
আরও পড়ুনঃ  'বস্তিবাসীকে গ্রামে পাঠিয়ে খাবারের ব্যবস্থা করা হবে'

সংবাদটি শেয়ার করুন