সোমবার, ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফিলিস্তিনের পক্ষে দাঁড়ালো চীন

ফিলিস্তিনের পক্ষে দাঁড়ালো চীন

দ্বিতীয় দিনে পা দিলো ইসরায়েল-ফিলিস্তিন যুদ্ধ। এতে হামাসের হামলায় ইসরায়েলে নিহতের সংখ্যা ৪০০ ছুঁয়েছে। আর গাজায় ইসরায়েলিদের পাল্টা হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় ৩২০ জন ফিলিস্তিনি। এরই মধ্যে আবারও ইসরায়েলে ঢুকে পড়েছে ফিলিস্তিনের যোদ্ধারা। বিভিন্ন জায়গায় দুই পক্ষের মধ্যে ব্যাপক যুদ্ধ চলছে।

এমন পরিস্থিতিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নেতারা এ সংঘাত বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানিসহ পশ্চিমা দেশগুলোর অধিকাংশই ইসরায়েলের পাশে অবস্থান নিয়েছে। তবে এই সংঘাতের অবসানে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন দুটি আলাদা স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাকেই একমাত্র সমাধান হিসেবে বিবেচনা করছে চীন।

রোববার (৮ অক্টোবর) চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে ফিলিস্তিন-ইসরায়েল যুদ্ধের বিষয়টি উঠে আসে। এ সময় এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, ফিলিস্তিন-ইসরায়েলের বর্তমান উত্তেজনা ও সহিংসতার ঘটনায় বেইজিং গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। আমরা উভয় পক্ষকে শান্ত ও সংযম ধরে রাখার আহ্বান জানাই।

তিনি আরও বলেন, সংঘাত বৃদ্ধির ফলে শান্তি প্রক্রিয়ায় দীর্ঘস্থায়ী স্থবিরতা দেখা দিতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে দ্বি-রাষ্ট্রীয় সমাধানের বাস্তবায়ন ও স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাই চলমান সংকট থেকে মুক্তির একমাত্র উপায়।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আরও বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে দ্রুত স্থায়ী শান্তির উপায় খুঁজে বের করতে হবে। স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় আলোচনা বাড়ানোর পাশাপাশি ফিলিস্তিন-ইসরায়েলের মধ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার আলোচনা পুনরায় শুরুর প্রক্রিয়া সহজ করতে হবে।

এদিকে, ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাতে চীনের এই অবস্থানে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে তেল আবিব। বেইজিংয়ে নিযুক্ত ইসরায়েলের দূতাবাসের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা ইউভাল ওয়াকস বলেন, ইসরায়েল চীনকে ঘনিষ্ঠ বন্ধু হিসেবে দেখে, তাই আমরা চীনের কাছ থেকে হামাসের এ হামলার বিষয়ে ‘কঠোর নিন্দা’ আশা করেছিলাম। এখন দ্বি-রাষ্ট্রীয় সমাধানের আহ্বান জানানোর সময় না।

Print Friendly, PDF & Email
আরও পড়ুনঃ  মরুকরণে বরেন্দ্রভূমি

সংবাদটি শেয়ার করুন