সোমবার, ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জোড়া সেঞ্চুরিতে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড

জোড়া সেঞ্চুরিতে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড

বিশ্বকাপ উদ্বোধনী ম্যাচে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড। ব্যাটারদের ব্যার্থতায় ২৮২ রানেই থেমে যায় ইংলিশদের ইনিংস। জবাবে ব্যাট করতে নেমে রীতিমতো ইংলিশ বোলারদের সঙ্গে এক প্রকার ছেলে-খেলাই করেছে নিউজিল্যান্ডের দুই ব্যাটার ডেভিড কনওয়ে এবং রাচিন রবীন্দ্র।

নিউজিল্যান্ডের দুই ক্রিকেটারের জোড়া সেঞ্চুরি ও অপরাজিত ২৭৩ রানের জুটিতে ইংল্যান্ডকে ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে। এতে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচেই পরাজয়ের স্বাদ গ্রহণ করতে হয়েছে ২০১৯ সালের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের। দুর্দান্ত এই জয়ের দিন এক রেকর্ডের দেখা পেয়েছে নিউজিল্যান্ডের দুই ব্যাটার। ২০১১ সালে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে মিরপুরে বাংলাদেশের বিপক্ষে ২০৩ রানের জুটি গড়েছিলেন বিরাট কোহলি এবং বীরেন্দ্র শেবাগ। সে ম্যাচে শেবাগ করেছিলেন ১৭৫ রান এবং কোহলি করেছিলেন ১০০। এতদিন পর্যন্ত বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে সেটিই ছিল সর্বোচ্চ রানের জুটি। শেবাগ-কোহলির সেই রেকর্ডই আজ ভেঙেছেন ডেভিড কনওয়ে এবং রাচিন রবীন্দ্র জুটি। দুজনে মিলে ২৭৩ রানের অপরাজিত জুটি গড়েন। অনবদ্য এ জুটিতেই শেষ পর্যন্ত জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে নিউজিল্যান্ড।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় নরেন্দ্র মোদি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার (৫ অক্টোবর) ইংল্যান্ডের দেয়া ২৮৩ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি কিউইদের। দলীয় ১০ রানেই ওপেনার উইল ইয়াং কে হারায় গেল আসরের রানার্সআপরা। পরে অবশ্য দুর্দন্ড প্রতাপে ঘুরে দাঁড়িয়েছে কিউইরা। আরেক ওপেনার কনওয়ে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে রবীন্দ্রকে সঙ্গে নিয়ে ইংলিশ বোলারদের উপর ব্যাট হাতে চালিয়েছেন রোলার কোস্টার। এতে আর কোনো উইকেট না হারিয়েই ৩৬.২ ওভারে ২৮৩ রানের দেখা পেয়েছে কিউরা।

আরও পড়ুনঃ  বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ

প্রথমে ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে নামে ইংল্যান্ড। ম্যাচের শুরুতেই ভালোর আভাস দিলেও ৪০ রানে হারায় প্রথম উইকেট। এরপর দলের ব্যাটাররা ভালো শুরু পেলেও রান বড় করতে পারেননি। দলীয় ১০০ রানের আগেই তিন উইকেট এবং দলীয় ২০০ রানের আগে পাঁচটি; এভাবে ধারাবাহিক উইকেট হারিয়ে তিনশ’ রানের আগে থেমেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। শুরুতেই উইকেট বিলান বাঁ-হাতি ওপেনার ডেডিভ মালান। ১৪ রান করে ফিরে যান তিনি। অন্য ওপোনর জনি বেয়ারস্টো ৩৫ বলে চারটি চার ও এক ছক্কায় ৩৩ রান করে ক্যাচ দেন। তারা বিদায় নিলে চারে নামা হ্যারি ব্রুকও সেট হয়ে ফিরে যান। তিনি ১৬ বলে চারটি চার ও এক ছক্কায় ২৫ রান যোগ করেন। এরপর মঈন আলী ১১ রান করেন।
দলের সেরা জুটি দেন জো রুট ও জস বাটলার। তারা ৭৮ রান যোগ করেন। পাঁচে নামা অধিনায়ক বাটলার ৪২ বলে দুটি করে চার ও ছক্কায় ৪৩ রান করে আউট হন। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৭ রানের ইনিংস খেলেন জো রুট। তিনি ৮৬ বল খেলে চারটি চার ও এক ছক্কায় ওই রান করেন। এরপর লিয়াম লিভিংস্টোন (২০) ও স্যাম কারেন (১৪) ফিরে যান। পরে আদিল রশিদ (১৫) ও মার্ক উড (১৩) ছোট ছোট রান যোগ করে দলকে লড়াই করার পুঁজি এনে দেন।

জয়ী নিউজিল্যান্ডের হয়ে দুর্দান্ত বোলিং করেছেন পেসার ম্যাট হেনরি। ১০ ওভারে ৪৮ রান দিয়ে তিন উইকেট নিয়েছেন তিনি। চলতি বিশ্বকাপের প্রথম উইকেট শিকারিও হেনরি। এছাড়া মিশেল সাটনার ও গ্লেন ফিলিপস দুটি করে উইকেট নিয়েছেন। একটি করে উইকেট নিয়েছেন ট্রেন্ট বোল্ট ও রাচিন রবিন্দ্র।

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন