শুক্রবার, ২১শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৭ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
থানায় ছেলে-মেয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ

জমির জন্য বৃদ্ধ মা’কে মারধর

জমি লিখে না দেওয়ায় মা-মাকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে ছেলে-মেয়ে'র বিরুদ্ধে। ছেলে ও মেয়ের এমন অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে বিচার দাবি করেছেন বৃদ্ধ মা- বাবা। শুধু তাই নই, ওই ছেলে-মেয়ের নামে থানায়ও অভিযোগ করেছেন মারধরের শিকার বৃদ্ধ মা শাহিদা বেগম (৫০)।

জমি লিখে না দেওয়ায় মা-মাকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে ছেলে-মেয়ে’র বিরুদ্ধে। ছেলে ও মেয়ের এমন অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে বিচার দাবি করেছেন বৃদ্ধ মা- বাবা। শুধু তাই নই, ওই ছেলে-মেয়ের নামে থানায়ও অভিযোগ করেছেন মারধরের শিকার বৃদ্ধ মা শাহিদা বেগম (৫০)।

ঘটনাটি ঘটেছে নেত্রকোণা পৌর শহরের ৪নং ওয়ার্ডের বালুয়াকান্দা এলাকায়। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে বাড়িতে এসে টাকা-পয়সা চায় না দিলে
এ সময় টাকা-পয়সা ও জমির মেরে ফেলার হুমকি দেয় অভিযুক্ত ওই ছেলে।

শনিবার দুপুরে ছেলের হাতে মারধরের শিকার মা শরীরের ক্ষতচিহ্ন সাংবাদিকদের দেখিয়ে ছেলে ও মেয়ের বিচারের দাবি করেন। এর আগে বৃহস্পতিবার নিজ বাড়িতে ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে জমির জন্য বৃদ্ধ মাকে মারধর করেছে বড় ছেলে বাদল মিয়া ও মেয়ে শাপলা আক্তার। এসময় বৃদ্ধের স্বামী ফৌজদার মিয়া বাধা দেওয়ায় তাকেও মারধর করে তারা।

বৃদ্ধা মা শাহিদা বেগম বলেন, আমার বড় ছেলে ও মেয়ে আমার জমি নেওয়ার জন্য আমাকে বাড়িতে এসে মারধর করেছে। তারা প্রায় সময়ে আমাকে এবং আমার স্বামী ও ছোট ছেলেকে গালি-গালাজ করে। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কথা বলে আমাদের হুমকি দেয় বড় ছেলে বাদল ও মেয়ে শাপলা। বৃহস্পতিবার দুপুরে আমার বড় ছেলে ও মেয়ে আমাকে নির্মমভাবে নির্যাতন ও মারপিট করে। নিরুপায় হয়ে সরকারের কাছে এই ছেলে ও মেয়ে কর্তৃক এই নির্যাতনের বিচারের দাবি জানায় বৃদ্ধা শাহিদা বেগম।

বাবা ফৌজদার মিয়া বলেন, আমার দুই ছেলে এক মেয়ে। আমার স্ত্রী শাহিদা বেগম তার বাবার বাড়ি থেকে ওয়ারিশ সূত্রে একটু জমি পায়। এই জমি নেওয়ার জন্য আমার বড় ছেলে বাদল ও মেয়ে শাপলা আমার স্ত্রীকে ও আমাকে বিভিন্নভাবে অত্যাচার করে আসছে। সব জায়গা-জমি তাদের নামে লিখে দিতে হবে। আমার স্ত্রী জমি লিখে দেয়না বলে বৃহস্পতিবার দুপুরে আমার স্ত্রী ও আমাকে মারধর করে।

আরও পড়ুনঃ  করোনা চিকিৎসায় ‘প্লাজমা থেরাপি’ কার্যক্রম শুরু

তিনি আরো বলেন, আমার মেয়ের আগে এক বিয়ে হয়ে ছিলো। ওই স্বামী তাকে ছেড়ে দেওয়ার তার আরেকটা বিয়ে হয়। কিন্তু আগের ঘরের একটি ছেকে সন্তান ছিলো।এসন্তান কেউ নিবেনা বলে আমি তাকে লালন-পালন করি। এখন আমার স্ত্রী থানায় আমাদের মারধরের অভিযোগ করায় আমার নাতি নিয়ে ঘুম করে আমাদের উপর মামলা দিবে বলে আমাদের হুমকি দেয় মেয়ে ও মেয়ের জ্বামাই।

ছোট ছেলে মোঃ সেলিম জানায়, তার মায়ের জমি নেওয়ার জন্য দীর্ঘদিন ধরে তাদের উপর বিভিন্ন ভাবে অত্যাচার করে আসছে তার বড় ভাই বাদল ও ভাইবৌ মিনাসহ তার বোন শাপলা। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে একপর্যায়ে তার বৃদ্ধ মা- বাবা মারধর করে তারা। এবং এমনি এই জমি ভাই ও বোনকে না দিলে মিথ্যা মামলা দেওয়ার হুমকিও দেয় তাদের।

অন্যদিকে অভিযুক্ত বড় ছেলে বাদল ও তার স্ত্রী এবং বোন শাপলা’র বিরুদ্ধে তাদের বৃদ্ধা মা-বাবাকে মারধরের আনিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে দাবি তারা।

এবিষয়ে নেত্রকোণা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ লুৎফুল হক অভিযোগ প্রাপ্তির সতত্যা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি তদন্তাধীন আছে।তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

আনন্দবাজার/শহক

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন