রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

শীতকালিন সবজিতে স্বস্তি

শীতকালিন সবজিতে স্বস্তি

কুড়িগ্রামের উলিপুরে উপজেলার পৌরসভাধীন বড় সবজির বাজারে শীতকালীন সবজি প্রচুর পরিমাণ আমদানি হওয়ায় স্বস্তির নিঃশ্বাস ছাড়ছেন সকল শ্রেণির ক্রেতারা। সবজি ক্রয়ে ক্রেতাদের ভিড় দেখা যায়।

সরেজমিন উপজেলার পৌরসভাধীন বড় সবজির বাজারসহ অন্যান্য ছোট বড় বাজারগুলোতে গিয়ে দেখা যায়, সবজির বাজারে সবজির মূল্য কিছুটা হাতের নাগালে থাকায় সবজি ক্রেতার উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়। সারাদিন পাইকারি ও খুচরায় সবজিবিক্রি করতে ব্যস্ত সময় পার করছেন ব্যবসায়ীরা।

ব্যবসায়ীরা জানান, বর্তমানে বাজারে সবজির প্রচুর পরিমাণ আমদানি হওয়ায় দামও হাতের নাগালে। সকল শ্রেণির ক্রেতা বিভিন্ন ধরনের সবজি কিনছেন। পাইকারি দরে সবজি বিক্রেতারা জানান, উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে বিভিন্ন ধরনের সবজি আমদানি হওয়ায় সবজির বাজার দর অনেক কমেছে।

উপজেলার পৌরসভাধীন বড় সবজির বাজারে পাইকারিতে আলু কেজি প্রতি ১৯ টাকা, খুচরায় ২৫ টাকা, পাইকারিতে কেজি প্রতি মরিচ ২৫ টাকা, খুচরায় কেজি প্রতি ৩৫ টাকা, পাইকারিতে কেজি প্রতি মুলা ৭ টাকা, খুচরায় কেজি প্রতি  ১০ টাকা, পাইকারিতে বেগুন ৮ টাকা খুচরায় ১২ টাকা, পাইকারিতে পাতা কপি প্রতি পিচ ২০ টাকা খুচরায় প্রতি পিচ ২৫ টাকা, পাইকারিতে ফুল কপি প্রতি কেজি ২৫ টাকা খুচরায় প্রতি কেজি ৩০ টাকা, পাইকারিতে পিয়াজ কেজি প্রতি ৪০ টাকা খুচরায় প্রতি কেজি ৫০ টাকা, পাতা পিয়াজ পাইকারিতে কেজি প্রতি ১৮ টাকা খুচরায় ২৫ টাকা, পাইকারিতে রসুন কেজি প্রতি  ৬০ টাকা খুচরায় কেজি প্রতি ৭০ টাকা, পাইকেরিতে সিম কেজি প্রতি ৪০ টাকা খুচরায় কেজি প্রতি ৫০ টাকা, ধনে পাতা পাইকেরিতে কেজি প্রতি ৩০ টাকা খুচরায় কেজি প্রতি ৪০ টাকা এবং আদা পাইকেরিতে কেজি প্রতি ১০০ টাকা খুচরায় কেজি প্রতি ১২০ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ  বারডেম-২ হাসপাতালে আগুন

সবজি ক্রেতা উপজেলার ধরনিবাড়ি ও তবকপুর থেকে আসা ফয়জার মিয়া (৬৫) এবং আজিমুদ্দিন (৭০) বলেন, কিছুদিন আগে সবজির বাজার এতই বেশি ছিল যে বাজারে সবজি কিনতে সাহস পাচ্ছিলাম না। তারা বলেন, আমরা গরীব মানুষ টাকা আয় করতে পারিনা। দাম বেশি থাকলে কিভাবে কিনে খাবো। এখন বিভিন্ন ধরনের সবজির দাম কমেছে অল্প টাকায় অনেক সবজি কিনতে পারছি। এরকম সবজির বাজার সারাবছর কম থাকলে আমাদের মতো গরিব অসহায় মানুষ কিনে খেতে পারতাম।

পাইকারি সবজিবিক্রেতা জয়নাল মিয়া বলেন, এখন বাজারে প্রচুর পরিমাণ বিভিন্ন ধরনের সবজির আমদানি হয়েছে। দামও হাতের নাগালে। তাই ক্রেতার অনেক ভিড় দেখা যাচ্ছে। আমরা কিছুদিন আগে সবজি নিয়ে বসে ছিলাম। তবে, দাম বেশি থাকায় ক্রেতার উপস্তিতি কম ছিলো। বর্তমান এতই ক্রেতার উপস্থিতি যে সারাদিন পাইকারি ও খুচরায় বিক্রি করতে ব্যস্ত সময় পার করতে হচ্ছে।

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন