রবিবার, ১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাছের সঙ্গে শত্রুতা ক্ষতি ১০ লাখ

মাছের সঙ্গে শত্রুতা ক্ষতি ১০ লাখ

সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার হেলাতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুল ইসলামে তিন ঘেরে পর পর তিন দিনে শত্রুর দেওয়া বিষে সাড়ে ১০ লক্ষ টাকার পাঙ্গাশ তেলাপিয়া রুই কাতলা মাছের চারা পোনা মারা গেছে।

গতকাল বুধবার সকালে ইউনিয়নের ব্রজবাকসা উত্তর পাড়া এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে  বলে নিশ্চিত করে জানিয়েছেন থানা পুলিশ পরিদর্শক এসআই শাহাজাহান আলী।  ক্ষতিগ্রস্ত  শফিকুল ইসলাম ব্রজবাকসা উত্তর পাড়া এলাকার মৃত লুৎফর রহমানের ছেলে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ৬০ হাজার পিছ পাঙ্গাশ ও ২০ হাজার তেলাপিয়া রুইয়ের স্টক নার্সারি পুকুরে  মাছ মরে ভেসে আছে ।এলাকার নারী পুরুষ ও শিশুরা পুকুরে নেমে বড় মাছ গুলো সংগ্রহ  করছে। একই এলাকায় গত ৫আগস্ট শুক্রবার  ও গত ৯ আগস্ট মঙ্গলবার ও আজকে তার নিজ বাড়ির পিছনের পুকুরে শত্রুরা বিষ প্রয়োগ করে পর পর এমন  ঘটনা ঘটিয়েছে বলে জানিয়েছেন মাছ চাষি শফিকুল ইসলাম।

মরা মাছ সংগ্রহ করতে আসা আব্দুস সাত্তারের মেয়ে  সাবিলা খাতুন বলেন,  পুকুরের নিচে চারা মাছ মরে তলিয়ে আছে দুর্গন্ধে কুড়ানো যাচ্ছে না এত ছোট মাছ খাওয়াও যাবেনা আবার বিক্রিও করা যাবেনা। এত বড় ক্ষতি যেই করুক তাকে যেন আইনের আওতায় আনা হয়।

ইউপি সদস্য নাসিমা খাতুন বলেন, একজন মাছ চাষির তিনটি পুকুরে বিষ প্রয়োগ করা মানে জীবন ও পরিবার ধ্বংস করে দেওয়ার মতো। এত বড় দুঃসাহসিক কাজ যেই করুক প্রশাসনের প্রতি আকুল আবেদন  তাদেরকে যেন আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি দেয়া হয়।

আরও পড়ুনঃ  স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতির দায় সরকারের নয়: নতুন ডিজি

হেলাতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাছ চাষি শফিকুল ইসলাম বলেন,  গত ৩০ বছর যাবত চারা পোনা মাছের চাষ করে আসছি  ও গত ৯ বছর যাবত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কলারোয়া উপজেলার ৯ নম্বর হেলাতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। এ ব্যবসায়ী জীবনে গত ৬ মাস আগে উত্তর দিগং গ্রামে ১০০  বিঘা ঘেরে একদল কুচক্রী মহল বিষ প্রয়োগ করেছিল যার মামলা চলমান রয়েছে। এখন আবার আমার সর্বস্ব ধ্বংস করতে পর পর  তিন দিনে তিনটা ঘেরের সাড়ে দশ লক্ষ টাকার চারা পোনা মাছ মেরে আমাকে নিঃস্ব করে দিয়েছে। থানা পুলিশ এলাকাবাসী গন্যমান্য ব্যক্তি সকলে স্বচক্ষে দেখেছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি প্রধানমন্ত্রীর কাছে ক্ষতিপূরন চাই। আর যারা আমার ক্ষতি এমন ঘৃণিত করেছে তাদের থানায় মামলা করবো প্রশাসনের কাছে অনুরোধ জড়িতদের আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি দেওয়া হোক৷

কলারোয়া থানা অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দীন মৃধা বলেন, গত ৬ মাস আগে শফিকুল ইসলামের একটি ঘেরে বিষ প্রয়োগের ঘটনায় ৬ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছিল যে মামলাটি চলমান রয়েছে৷ আবারও তার  তিনটি পুকুরে কে বা কাহারা বিষ প্রয়োগ করাই মাছ মারা গেছে এমন সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশের একটি টিম পাঠানো হয়েছে৷ বিষয়টি তদন্ত চলছে তবে ভুক্তভোগীর কাছ থেকে এখনো কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে৷

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন