সোমবার, ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বোয়ালের পোনায় চমক

বোয়ালের পোনায় চমক

দেশে বোয়াল মাছ এখন প্রায় বিলুপ্তির পথে। বড় বড় নদী বা সাগর ছাড়া এখন আর এ বোয়াল মাছের দেখা মিলে না। যদিও এটি রাক্ষসে মাছ। তবে এ মাছটি খুবই জনপ্রিয়। স্বাদে ও গুণে ভরপুর। বোয়াল মাছের পোনা উৎপাদন করে মাছটিকে চাষের আওতায় আনতে গত তিন বছর ধরে কাজ করে আসছেন কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলা বিসমিল্লাহ মৎস্য বীজ উৎপাদন খামারের সত্ত্বাধিকারী সামছুউদ্দিন কালু।

চলতি বছর কৃত্তিমভাবে বোয়াল মাছের পোনা উৎপাদন করে সফল হয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন তিনি। বর্তমানে খামারটিতে রেনু পোনা থেকে ৪-৬-৮ ইঞ্চি সাইজের পোনা রয়েছে। যা চাষের পুকুরে দেয়া হয়েছে। গতকাল রোববার বিসমিল্লাহ মৎস্য বীজ উৎপাদন খামারে গিয়ে এমনি চিত্র পাওয়া যায়।

জানা যায়, গত কয়েকদিন পোনা মাছগুলো ভেড় জাল দিয়ে তুলে সাইজ দেখছেন সামছুউদ্দিন কালু। রেনু পোনা থেকে যা কালচারের পুকুরে নেয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আগামী বছর কৃত্তিমভাবে বোয়ালের রেনু পোনা উৎপাদন করে নাঙ্গলকোট উপজেলাসহ সারাদেশে বোয়াল মাছের পোনা বিক্রি করার জন্য কাজ করছেন তিনি।

এ বিসমিল্লাহ মৎস্য বীজ উৎপাদন খামার মাছ উৎপাদন ও প্রক্রিয়াজাত করার মাধ্যমে একজন সফল মৎস্য চাষি হিসেবে জাতীয় পর্যায়ে স্বর্ণ পদকসহ একাধিক পুরস্কার লাভ করেন। সর্বশেষ গত ২৭ আগষ্ট কৃষিক্ষেত্রে বিশেষ ব্যক্তি হিসেবে কৃষি উৎপাদন এআইপি সম্মাননা পেয়েছেন সামছুউদ্দিন কালু।

সামছুউদ্দিন কালু একজন সফল মৎস্য চাষিই নন। এর পাশাপাশি তিনি নাঙ্গলকোট উপজেলার একজন সফল রাজনৈতিক ব্যক্তিও। ছাত্রলীগের রাজনীতি থেকে শুরু করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পর্যন্ত হয়েছেন। সাবেক নাঙ্গলকোট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে পৌর মেয়র ও বর্তমানে টানা দুইবারের উপজেলা চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন।

আরও পড়ুনঃ  জিপিএ-৫ জীবনের একমাত্র লক্ষ্য হতে পারে না : শিক্ষামন্ত্রী

বিসমিল্লাহ মৎস্য উৎপাদন খামারের মালিক সামছুদ্দিন কালু বলেন, বোয়াল মাছ এখন বিলুপ্ত। শখের বশিভূত হয় বোয়াল মাছ চাষ করার ইচ্ছা পোষণ করি। যেই চিন্তা সেই কাজ। নদী থেকে মাছ সংগ্রহ করে বোয়ালের কৃত্তিম প্রজনন শুরু করি। তিন বছর কাজ করার পর ইনশাআল্লাহ আমি সফল হয়েছি। বর্তমানে রেনু উৎপাদন করে পুকুরে চাষ করি ৪-৬-৮ ইঞ্চি সাইজের বোয়াল মাছ। বোয়াল মাছের কোনো খাবার দিতে হয়না দেশীয় প্রজাতির অন্য ছোট মাছ খেয়ে এরা বড় হয়। পাশাপাশি এ খামারে কৃত্রিম প্রজননের মাধ্যমে পাঙ্গাস, রুই, মৃগেল, কাতলা, সিলভার কার্প, বিগহেড, কালি বাউস, স্বরপুটি, কই, শিং, মাগুর মাছ, টেংরামাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছের পোনা উৎপাদন করে থাকি। যা দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন