সোমবার, ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অর্জনের আগেই বাড়লো রফতানি লক্ষ্যমাত্রা

পণ্য ও সেবা মিলিয়ে রফতানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নতুন করে নির্ধারণ করা হয়েছে। নতুন রফতানি নীতিমালা ২০২১-২৪ এ রফতানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৮০ বিলিয়ন ডলার বা আট হাজার কোটি ডলার। আগের নীতিমালায় এ লক্ষ্যমাত্রা ছিলো ৬০ বিলিয়ন ডলার।

পণ্য ও সেবা মিলিয়ে রফতানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নতুন করে নির্ধারণ করা হয়েছে। নতুন রফতানি নীতিমালা ২০২১-২৪ এ রফতানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৮০ বিলিয়ন ডলার বা আট হাজার কোটি ডলার। আগের নীতিমালায় এ লক্ষ্যমাত্রা ছিলো ৬০ বিলিয়ন ডলার। তবে সেই লক্ষ্যমাত্রা এখনও অর্জন হয়নি। আন্তর্জাতিক অর্থনীতির পরিস্থিতির পাশাপাশি দেশে এবং দেশের বাইরে করোনার অভিঘাত বিবেচনায় রেখেই নতুন এই লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। চলতি অর্থবছরের বাজেটে রফতানি খাতের জন্য পরোক্ষ এবং প্রত্যক্ষ সহায়তা, রফতানি প্রণোদনার বিষয়টিও বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে।

অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি গত বুধবার নীতিমালার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে। বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের ব্রিফিং করে নীতিমালার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। মন্ত্রী জানান, নতুন রফতানি নীতিমালায় সব খাতে একইরকম নীতি সুবিধা দেওয়ার বিষয়ে বলা হয়েছে। নারী ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা যাতে সহজে রফতানি করতে পারেন সে ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে নীতিমালায়। পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সিং, তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের সেবা রফতানি যাতে আরও সহজ হয় সে উদ্যোগ রয়েছে।

তাছাড়া সবক্ষেত্রে কমপ্লায়েন্স বাড়ানো, মধ্যবর্তী ও রিসাইক্লিং পণ্য রফতানি, তৈরি পোশাকখাতকে আরও শক্তিশালী করার কৌশল রয়েছে নতুন নীতিমালায়। পাশাপাশি স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার উদ্যোগও রয়েছে। চলতি অর্থবছরের জন্য ৫১ বিলিয়ন ডলারের রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে বিভিন্ন ধরনের পণ্য রপ্তানি থেকে সাড়ে ৪৩ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার এবং সেবা খাতে ৭ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার রফতানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ঘোষণা করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

আরও পড়ুনঃ  বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

সর্বশেষ ২০২০-২১ অর্থবছরে ৩ হাজার ৮৭৬ কোটি ডলারের পণ্য রফতানি হয়েছে। আর সেবা খাতে রফতানি হয়েছে ৬৬১ কোটি ডলার। মোট ৪ হাজার ৫৩৭ কোটি ডলার রফতানি আয় করেছে বাংলাদেশ। মূলত, রফতানি খাতের চাহিদা এবং বিশ্ব বাণিজ্য পরিস্থিতি ও প্রেক্ষাপটের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে রফতানি নীতি ২০২১-২০২৪ এর খসড়া তৈরি করা হয়। সেখানে নতুন করে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়।

রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর সর্বশেষ তথ্যে দেখা যায়, অর্থবছরের প্রথম ছয় মাস শেষে পণ্য রফতানিতে ২৮ দশমিক ৪১ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। যা অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি। এ সময়ে ২ হাজার ৪৬৯ কোটি ৮৫ লাখ ডলারের পণ্য রফতানি হয়েছে। গত অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে যা ছিল এক হাজার ৯২৩ কোটি ৩৪ লাখ ডলার। মহামারীর কারণে গতবছর বৈদেশিক বাণিজ্য ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল।

আনন্দবাজার/শহক

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন