বুধবার, ১০ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৭শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মস্কোতে কনসার্টে ভয়াবহ হামলায় নিহত ৯৩

মস্কোতে কনসার্টে ভয়াবহ হামলায় নিহত ৯৩

রাশিয়ার রাজধানী মস্কোয় আয়োজিত এক কনসার্টে হামলার ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৯৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এই ঘটনায় ১১ জনকে আটক করা হয়েছে যাদের মধ্যে চারজন সরাসরি হামলার সঙ্গে জড়িত ছিলেন।

দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দেশটির নিরাপত্তা প্রধান। মস্কোর উপকণ্ঠে অবস্থিত ক্রোকাস সিটি হলের ওই কনসার্টে বন্দুক হামলা ও বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় আরও শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটির ফেডারেল সিকিউরিটি সার্ভিস (এফএসবি)। খবর বিবিসি।

শুক্রবার (২২ মার্চ) স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় ওই হামলার ঘটনা ঘটে। ইতোমধ্যে ওই হামলার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)। তবে রাশিয়ার পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

এ হামলায় কোনো ধরনের সম্পৃক্ততার কথা অস্বীকার করেছে ইউক্রেন। এদিকে হোয়াইট হাউজ বলছে, তারা সেখানকার পরিস্থিতি সম্পর্কে আরও তথ্য জানতে কাজ করছে। হোয়াইট হাউজ নিশ্চিত করেছে যে, মার্চের শুরুতেই মস্কোতে ‌‘বড় সমাবেশ’ লক্ষ্য করে হামলা চালানো হতে পারে এ বিষয়ে ‍রুশ কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করা হয়েছে। মস্কোর মেয়র সের্গেই সোবিয়ানিন এ ঘটনাকে ‘ভয়াবহ ট্র্যাজেডি’ বলে অভিহিত করেছেন। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ক্রোকাস সিটি সেন্টারে ভয়ানক ট্র্যাজেডি ঘটেছে। নিহতদের স্বজনদের প্রতি আমার সমবেদনা। এ ঘটনায় যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদের প্রয়োজনীয় সহায়তা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের মুখপাত্র অ্যাড্রিয়েন ওয়াটসন বলেন, চলতি মাসের শুরুর দিকে মস্কোয় একটি পরিকল্পিত সন্ত্রাসী হামলার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে তথ্য ছিল। কনসার্টসহ বড় ধরনের সমাবেশ লক্ষ্য করে হামলার সম্ভাবনা ছিল এবং এ বিষয়ে রুশ কর্তৃপক্ষকে ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে তথ্য দেওয়া হয়েছে। এর আগে ২০১৭ সালে সেন্ট পিটার্সবার্গ মেট্রোতে একটি বোমা হামলার ঘটনায় ১৫ জন নিহত হয়। বলা হচ্ছে, প্রায় ২০ বছরের মধ্যে এটাই রাশিয়ায় সবচেয়ে ভয়াবহ হামলার ঘটনা। এদিকে এ হামলার ঘটনায় ভারত এবং চীন রাশিয়ার প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেছে।

আরও পড়ুনঃ  ইসরাইলের সাথে সম্পর্কে নিরাপত্তাহীনতা বাড়বে সৌদির : ইরান

চীন সব ধরনের সন্ত্রাসবাদের বিরোধিতা করে উল্লেখ করে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বলেন, চীন সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা করে এবং জাতীয় নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা রক্ষার জন্য রুশ সরকারের প্রচেষ্টাকে দৃঢ়ভাবে সমর্থন করে। অপরদিকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ইতোমধ্যে এ ‌‘জঘন্য সন্ত্রাসী হামলার’ নিন্দা জানিয়ে সামাজিক মাধ্যমে একটি পোস্ট করেছেন। তিনি লিখেছেন, ভয়াবহ এ শোকের সময় রুশ সরকার এবং এর জনগণের প্রতি তার দেশ সংহতি প্রকাশ করছে।

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন