রবিবার, ১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে পূর্বের ভর্তি যোগ্যতা বহালের দাবি শিক্ষার্থীদের

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি যোগ্যতা পূর্বে যা ছিল, তাই বহাল রাখতে ও সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি সম্পূর্ন হওয়ার পরে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি কার্যক্রম শুরু করার দাবি জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

আজ সোমবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ( ডাকসু) কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব দাবি জানায় ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ১ম বর্ষ স্নাতক ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি আবেদন যোগ্যতা সকল বিভগের ক্ষেত্রে এসএসসি তে ৩.৫০ করেছে, যা পূর্বে ছিল ২.৫০। এমতাবস্থায় লক্ষ লক্ষ শিক্ষার্থী আবেদনই করতে পারছে না। অনেক শিক্ষার্থী এসএসসিতে খারাপ করার ফলে এইচএসসি তে ভালো করে পড়াশুনা করে ভালো ফলাফল করেছে, তারাও আবেদন করতে পারছে না। চলতি শিক্ষাবর্ষে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৯ হাজার সিট ফাঁকা রয়েছে। তারপরেও এমন একটি বাঁধা। যার ফলে অনেক শিক্ষার্থীর উচ্চ শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হওয়ার উপক্রম সৃষ্টি হয়েছে৷

সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, অনেক শিক্ষার্থী আছে যারা এসএসসি এবং এইচএসসি মিলিয়ে ১০ এর মধ্যে ৮ এর বেশি পয়েন্ট থাকা সত্ত্বেও তারা আবেদন করতে পারবে না শুধু এই শর্ত বৃদ্ধির কারনে।

উচ্চ শিক্ষার সর্বশেষ মাধ্যমে হিসেবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কে দেখিয়ে আরও বলা হয়, আমাদের দেশে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা অনুযায়ী পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে আসন অনেক কম। ফলে যারা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সুযোগ পাবে না তাদের সামনে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করার অন্য কোনো উপায় নেই। আবার আমাদের সমাজে অনেকেরই প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সামর্থ্যও নেই।

আরও পড়ুনঃ  বাড়ছে সাধারণ ছুটি

সম্মেলনে বলা হয়, বর্তমানে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির আগেই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ হয়ে যায়। ফলে পরবর্তীতে পাবলিকে সুযোগ পাওয়া একজন শিক্ষার্থীকে অর্থনৈতিক চাপে পড়তে হয়। যে কারনে যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও শিক্ষার্থীরা উচ্চ শিক্ষা পাওয়ার অধিকার থেকে বঞ্চিত হয়৷

এসময় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে এই ধরনের অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার ফলে প্রচুর সংখ্যক শিক্ষার্থীর স্বপ্নভঙ্গ হবে জানিয়ে অতি শ্রীঘ্রই তাদের দাবি মেনে নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়।

আনন্দবাজার/টি এস পি

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন