মঙ্গলবার, ১৬ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১লা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনায় বীর খোরশেদের স্ত্রী সংকটাপন্ন

করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের লাশ দাফন ও সৎকার করা নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সেই ১৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ ও তার স্ত্রী আফরোজা খন্দকার লুনা রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এর আগে শনিবার রাতে সিদ্ধিরগঞ্জের সাজেদা ফাউন্ডেশন হাসপাতালে তারা চিকিৎসাধীন ছিলেন।

রোববার বিকেলে খোরশেদের স্ত্রী আফরোজা খন্দকার লুনার অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হলে সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের পরামর্শ ও সহযোগিতায় তাকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর আগে সকাল থেকে সিদ্ধিরগঞ্জের সাজেদা ফাউন্ডেশন হাসপাতালে খোরশেদের স্ত্রীর অবস্থার অবনতি হতে থাকে। তিনি অক্সিজেন সাপোর্টে চলে যান। এর আগেই গত ২৩মে করোনা আক্রান্ত হয়ে বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছিলেন খোরশেদের স্ত্রী আফরোজা আক্তার লুনা। এর মধ্যে শনিবার খোরশেদ নিজেও করোনায় আক্রান্ত হন।

উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতিতে কাউন্সিলর মাকসুদুল ও তাঁর দল শনিবার পর্যন্ত ৬৩ টি লাশ দাফন করেছেন। এ ছাড়া করোনা পরিস্থিতির শুরুতে তাঁর ওয়ার্ডের বিভিন্ন স্থানে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা, হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরির পর বিতরণ, ভর্তুকি মূল্যে ঘরে ঘরে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ, জীবাণুনাশক স্প্রে, তাঁর ওয়ার্ডবাসীর স্বাস্থ্যসেবা ও পরামর্শে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়ে টেলিমেডিসিনসেবা চালু করেছেন তিনি।

এছাড়া শুধু তাঁর ওয়ার্ড নয়, নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন এলাকার করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের মরদেহ দাফনে স্বজনেরা কেউ এগিয়ে না এলেও তিনি ও তাঁর স্বেচ্ছাসেবক দল এগিয়ে আসছে। তাঁর ওয়ার্ডসহ বিভিন্ন এলাকায় তিনি বিনা মূল্যে সবজি বিতরণ কার্যক্রমও শুরু করেছেন এবং এটি অব্যাহত থাকবে। শুধু তাই নয়, তার ওয়ার্ডবাসীর স্বাস্থ্যসেবা ও পরামর্শের জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়ে চালু করেছেন টেলি মেডিসিন সেবা। করোনা থেকে সেরে ওঠাদের কাছ থেকে প্লাজমা সংগ্রহের কাজও শুরু করেছেন।

আরও পড়ুনঃ  প্রাণঘাতী করোনায় জবি কর্মচারীর মৃত্যু

আনন্দবাজার/শাহী

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন