শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত

রোগীদের সকল ধরণের রোগের উন্নত চিকিৎসা সেবা যাতে দেশেই নিশ্চিত করা যায়, সেই অঙ্গীকার নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫তম দিবস ও ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

গতকাল শনিবার সকালে দিবসটি শুরু হয় ক্যাম্পাসে স্থাপিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে। এরপর জাতীয় সংগীতের সাথে জাতীয় পতাকা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন করা হয়। পতাকা উত্তোলনের পর একটি শোভাযাত্রা বিশ্ববিদ্যালয়ের বি- ব্লকের সামনে থেকে শুরু হয়ে বটতলা, টিএসসি, বেসিক সাইন্স ভবন, ডি ব্লক, সি ব্লক প্রদক্ষিণ করে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে গিয়ে শেষ হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে এসব কর্মসূচি পালিত হয়।

দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে ১৯৯৮ সালে জাতির পিতার নামে এদিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন জানিয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, এদিনে সবার শপথ নিতে হবে, যে যার কাজ সততার সাথে করবো। সততা ও দক্ষতার সাথে নিরলস পরিশ্রম করে এই বিশ্ববিদ্যালয়কে আর্ন্তজাতিক মানে উন্নীত করতে হবে। শিক্ষার মান আরো বাড়াতে হবে। গবেষণার মানও বৃদ্ধি করতে হবে। সেবার মান আগের থেকে যেমন করে করোনার সময় বৃদ্ধি করতে পেরেছি ঠিক তেমন করে আরও বৃদ্ধি করতে হবে। চিকিৎসা ব্যবস্থা এমন  করতে হবে যাতে দেশের বাইরে কাউকে চিকিৎসা নিতে না যেতে হয়। বিশ্বের সর্বাধুনিক অপারেশনের ব্যবস্থাপনা করার জন্য প্রয়োজনী উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ  মন্দাতেও ক্রেতার চাপ

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত রূপকল্প ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতও উন্নত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, আমাদের এখানে শিক্ষা গবেষণা ও চিকিৎসার মান বৃদ্ধি করতে পারলে শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী করা হবে। আমাদের প্রধানমন্ত্রী জন্য পরম করুনাময়ের কাছে সবার প্রার্থনা করতে হবে যাতে তিনি দীর্ঘায়ু হন। তিনি বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে পারেন।

কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. জাহিদ হোসেন, উপ-উপাচার্য (একাডেমিক) অধ্যাপক ডা. একেএম মোশাররফ হোসেন, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমদ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, সার্জারি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ হোসেন, ডেন্টাল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আলী আসগর মোড়ল, মেডিসিন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মাসুদা বেগম, শিশু অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. শাহীন আকতার, নার্সিং অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. দেবব্রত বনিক, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) ডা. স্বপন কুমার তপাদার, ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক ডা. মো. ফারুক হোসেন প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন