শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সাগরে মাছের উৎপাদন বাড়লেও মিলছে না সুফল

দেশে সাগরের মাছের উৎপাদন বাড়লেও মিলছে না এর সুফল। জেলেদের হাঁকডাকে কক্সবাজার মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র জমে উঠলেও কেন্দ্রের অবকাঠামোগত সমস্যার কারণে সুফল পাচ্ছেন না জেলে, শ্রমিক ও মৎস্য ব্যবসায়ীরা।

জেলে, শ্রমিক ও মৎস্য ব্যবসায়ীরা জানান, পল্টুন, জেটি ও পানির সংকট ও পর্যাপ্ত জায়গার অভাবে নষ্ট হচ্ছে মাছ। তবে অবকাঠামোগত উন্নয়নের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন অবতরণ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক।

সরকারের সাগরে ৬৫ দিন ও ২২ দিনের মাছ শিকারের নিষেধাজ্ঞার কারণে দিন দিন মাছের উৎপাদন বাড়ছে। এতে বিগত কয়েক বছরে সাগরে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ইলিশসহ নানা ধরনের সামুদ্রিক মাছ। আর এসব মাছ ধরার পর জেলেরা দ্রুত নিয়ে আসেন মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রের ঘাটে। কিন্তু মাছ ওঠানামায় ১টি মাত্র জেটি থাকায় নানা সমস্যায় পড়তে হয় জেলেদের।

এছাড়া বিপুল পরিমাণ মাছ অবতরণ হলে রাখার স্থান থাকে না ২টি পল্টুনে। তার ওপর জরাজীর্ণ পল্টুন, পানিসংকট ও পরিবহন সমস্যা তো রয়েছেই। এসব কারণে প্রতিদিনই বাড়তি খরচ বহন করতে হয় বলে দাবি মৎস্য শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের।

কক্সবাজারের মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক মো. এহছানুল হক বলেন, মাছ তোলার জন্য আরেকটি পল্টুন স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে। এটা হলে জেলেরা আরও সহজেই মাছ নিয়ে আসতে পারবেন।

আনন্দবাজার/ডব্লিউ এস

Print Friendly, PDF & Email
আরও পড়ুনঃ  ৭০ শতাংশ লিভার ক্যানসারের কারণ হেপাটাইটিস বি

সংবাদটি শেয়ার করুন