সোমবার, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শেরপুরে ডপস এর শিক্ষা সমাবেশ অনুষ্ঠিত

শেরপুরে দরিদ্র ও অসহায় শিক্ষার্থী উন্নয়ন সংস্থা ‘ডপস’ এর মেধাবী শিক্ষার্থীদের নিয়ে শিক্ষা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২১ নভেম্বর) জেলার নালিতাবাড়ি উপজেলার সীমান্তবর্তী গারো পাহাড়ের মধুটিলা ইকোপার্কে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর মহাপরিচালক ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সচিব মো. রাশেদুল ইসলাম। ডপস প্রতিষ্ঠাতা সেনা সদস্য মো. শাহিন মিয়া বিএসপি’র সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখন, বিশেষ অতিথি পিকেএসএফ এর জলবায়ু বিশেষজ্ঞ ড. ফজলে রাব্বী, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক শারমিন পারভিন, নালিতাবাড়ি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা নালিতাবাড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম মাসুম, সিনিয়র সাংবাদিক হাকাম হীরা, মালিঝিকান্দা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. রবিউল ইসলাম, জুলগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নজরুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আহমেদ হোসেন জনি, মাওলানা ভাষাণী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী জেসমিন আক্তার, শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শবনম মোস্তারি ও শামিম হোসেন প্রমূখ। এছাড়া সমাবেশে প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা এবং ডপস সদস্য শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশে প্রধান অতিথি ২০১৯-২০ সেশনে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া ১৭ জন ডপস সদস্য দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীর হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন। এর আগে এনজিও ব্যুরো মহাপরিচালক সকালে জেলা শহরের খরমপুরস্থ ডপস কার্যালয় পরিদর্শন করেন এবং ডপস এর নানা কার্যক্রম সম্পর্কে অবগত হন।

উল্লেখ্য, ডপস প্রতিষ্ঠাতা সেনা সদস্য শাহিন মিয়া এ কাজের জন্য ইতিপূর্বে মহামান্য রাষ্টপতি কর্তৃক বিশিষ্ট সেবা পদক এবং সর্বশেষ ২০২০ সালে জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার লাভ করেন। তার এ সংগঠনে বর্তমানে ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীর সংখ্যা রয়েছে ৩৫০ জন। এসব শিক্ষার্থীকে ডপস থেকে খাতা-কলম, বই-পত্র ও বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণসহ বিভিন্ন সময়ে ফরম ফিলাপ ও ভর্তির জন্য আর্থিক সুবিধা প্রদান করে আসছেন। এ সংগঠনে বর্তমানে ঝড়ে পড়া থেকে শিক্ষা জীবনে ফিরে এসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করছে প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থী।

আরও পড়ুনঃ  অস্তিত্ব সঙ্কটে সাতছড়ির ত্রিপুরা পল্লী

আনন্দবাজার/শাহী/মনির

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন