শুক্রবার, ১২ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৮শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বরগুনায় আয়রন ব্রীজ ভেঙ্গে ইট বোঝাই ট্রলি নদীতে আহত-২

বরগুনার আমতলী উপজেলার আমড়াগাছিয়া ব্রীজ ভেঙ্গে ইট বোঝাই ট্রলি নদীতে পড়ে গেছে। আজ বুধবার (১০জুন) সকালে ইট বোঝাই ট্রলি নিয়ে ব্রীজের উঠার পড়ে ভেঙে নদীতে পড়ে যায়।ঘটনাটা ঘটছে আমড়াগাছিয়া গ্রামে।ট্রলির চালক রাসেল ও হেল্পার ইয়াসিন আহত হয়।

জানা গেছে,২০০৬ সালে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ আমড়াগাছিয়া নদীতে বাজারের সংলগ্ন স্থানে আয়রন ব্রীজ নিমার্ণ করে। নিমার্ণের ১০ বছরের মাঝায় ২০১৬ সালে ব্রীজটির মাঝখানের অংশ ভেঙ্গে পড়ে। ব্রীজটি ভেঙ্গে পড়ায় কুকুয়া এবং গুলিশাখালী ইউনিয়নের মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিছিন্ন হয়ে যায়। তাৎক্ষনিক ওই ব্রীজের ভাঙ্গা অংশ স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ মেরামত করে। মেরামত করার পরে ওই ব্রীজ দিয়ে বড় যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ করে দেয় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ।

কিন্তু প্রকৌশল বিভাগের নিষেধ উপক্ষো করে ট্রাক ও ট্রলির মালিকরা ওই ব্রীজ দিয়ে যানবাহন চলাচল করতে থাকে। এতে দিন দিন ব্রীজ নড়বড়ে হয়ে পড়ে। মেরামতের চার বছরের মাথায় ব্রীজটি পুনরায় ভেঙ্গে পড়েছে। এতে দুইটি ইউনিয়নের অন্তত ত্রিশ হাজার মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে।

স্থানীয়রা জানান,ব্রীজের মধ্যের অংশ ভেঙ্গে নড়ীতে পড়ে আছে। ট্রলিটি নদীতে তলিয়ে গেছে ওই ট্রলিতে থাকা চালক রাসেল ও হেল্পার ইয়াসিন আহত হয়।পড়ে ওই দুইজন উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা
দেওয়ার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।মনে হয় ধারন ক্ষমতার চেয়ে কয়েকগুন বোঝাই ভারী যানবাহন চলাচল করায় এ ব্রীজ ভেঙ্গে পরেছে।দ্রুত ওইস্থানে গাডার্র ব্রীজ নিমার্ণের দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

আরও পড়ুনঃ  দাবদাহ চলবে ২০৬০ পর্যন্ত: জাতিসংঘ

আমতলী উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ আল মামুন বলেন, ধারন ক্ষতার চেয়ে ভারী যানবাহন চলাচল করায় ব্রীজ ভেঙ্গে পড়েছে। ট্রলির মালিককে ব্রীজ মেরামত করে দিতে হবে। তিনি আরো বলেন, ওইখানে গার্ডার ব্রীজ নিমার্ণের প্রস্তাব স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় পাঠানো আছে। অনুমোদন হলে গার্ডার ব্রীজ নিমার্ণ করা হবে।

আমতলী উপজেলা নিবার্হী অফিসার মনিরা পারভীন বলেন, ভাঙ্গা ব্রীজ এলাকা পরিদর্শন করে মানুষের যাকে দুভোর্গ পোহাতে না হয় সেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আনন্দবাজার/শহক/মোমিরনা

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন