সোমবার, ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধু বাঙালির মনে জীবিত থাকবে -আইনমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধু বাঙালির মনে জীবিত থাকবে -আইনমন্ত্রী

আইন বিচর ও সংসদ বিয়ক মন্ত্রী এড: আনিসুল বলেছেন আমাদেরকে বঙ্গবন্ধু এবং তার পরিবারের হত্যার প্রতিশোধ নিতে হবে। হত্যা করে আমরা প্রতিশোধ নিতে চাই না। যারা খুনি আমরা তাদেরকে বিচার করে কাঠ গড়ায় দাড় করিয়েছি। যারা ষড়যন্ত্র করে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল তারা বাংলাদেশকে হত্যা করতে চেয়েছিল। তাই আমাদের প্রতিশোধ হবে বাংলাদেশকে সোনার বাংলা বানিয়ে আমরা দেখাবো বঙ্গবন্ধু কোন দিন বাংলাদেশে মরবে না। বঙ্গবন্ধুকে বাংলাদেশে মারা যায় না। তিনি সব সময় বাঙ্গালীর মনে জীবিত থাকবেন। ব্রহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া রেলওয়ে স্টেশন চত্বরে মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা, দোয়া ও তাবারক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির

বক্ত্যব্যে তিনি এসব কথা বলেন। উপজেলা আওয়ামীলীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে এ আয়োজন করা হয়। মন্ত্রী বলেন বঙ্গবন্ধুকে যারা ষড়যন্ত্র করে হত্যা করেছিল এই নেপথ্যের ষড়য়ন্ত্রকারীদের আমরা চিহ্নিত করব। আপনাদের মনে প্রশ্ন থাকতে পারে ওই ষড়যন্ত্রকারীদের মধ্যে অনেকেতো মরে গেছে। আমি বারবার বলেছি আপনারা প্রতিহিংসার জন্য তাদেরকে চিহ্নিত করবেন না। আমরা চিহ্নিত করবো বাঙ্গালীকে সত্য ইতিহাস উপস্থাপন করতে। নতুন প্রজম্ম যেন জানতে পারে এরাই বাংলাদেশকে সর্বনাশের জন্য ষড়যন্ত্র করেছিল। এরাই বাঙ্গালী জাতির পিতা ও তার পরিবারবর্গকে হত্যা করেছিল। ওইসব ষড়যন্ত্রকারীদের পরিবার থেকে যেন নতুন প্রজম্ম সাবধান থাকে। নতুন প্রজম্ম যেন বাংলাদেশের ভার এইসব কুলাঙ্গারের হাতে তুলে না দেয়। কারণ বাংলাদেশ যদি তাদের হাতে যায় তাহলে

আরও পড়ুনঃ  রাণীশংকৈলের মেয়র হলেন নৌকা প্রার্থী মোস্তাফিজুর

তারা বিরান করে ফেলবে। আবারও ৭১ সালের মতো মানুষ হত্যা করবে। তিনি বলেন যারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল তারা ঠিকই ভেবে ছিল বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের লোকদের হত্যা করলে বাংলাদেশকে হত্যা করা হবে। বঙ্গবন্ধুর কন্যা যখনই বাংলাদেশের হাল ধরেছেন তখনই এই দেশের অবস্থা পাল্টে গেছে। বঙ্গবন্ধু স্বপ্ন দেখতেন পদ্মা তার কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের অর্থায়নে পদ্মা সেতু করেছেন। বঙ্গবন্ধু স্বপ্ন দেখতেন বাঙ্গালীর মাথা গুচার ঠাই। বঙ্গবন্ধুর কন্যা সকলকে গৃহ উপহার দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু স্বপ্ন ছিল বাংলাদেশে আইনের শাসন থাকবে, তার কন্যা যুদ্ধপরাধীদের বিচার করেছেন, বঙ্গবন্ধু খুনিদের বিচার করেছেন, জেল হত্যাকারীদের বিচার করেছেন। এখন মানুষ বুঝতে পারে তার পরিবারের কেউ যদি হত্যা হয় তাহলে এর বিচার বাংলাদেশের মাটিতে হবে। এর নামই হচ্ছে আইনের শাসন। আমাদেরকে মনে রাখতে হবে ষড়যন্ত্রকারীরা বসে নেই। ষড়যন্ত্র কিন্তু অন্ধকারে হয়। অন্ধকারের লোকজনরা কিন্তু বিএনপি জামায়েতে রয়েছে। তারা কিন্তু এখনো ষড়যন্ত্র করছে। তারা সব সময় মিথ্যা বলছে। তারা সত্যের ধার

ধারে না। মন্ত্রী বলেন বাংলাদেশকে রক্ষা করার দায়িত্ব আপনাদের। এই সব ষড়যন্ত্রকারীর থেকে আপনারা সতর্ক থাকবেন। উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোহাম্মদ আলী চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় বক্ত্যব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো: মনির হোসেন বাবুল। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো: আবুল কাশেম ভূইয়া, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসরিন শফিক আলিয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা মো: সেলিম ভূইয়া, উপজেলা যু¦লীগের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল মমিন বাবুল, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শাহাব উদ্দিন বেগ শাপলু, সাধারণ সম্পাদক মো: শাখাওয়াত হোসেন নয়ন প্রমূখ। এরআগে তিনি ঢাকা থেকে ট্রেন যোগে আখাউড়ায় আসেন।

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন