মঙ্গলবার, ১৬ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১লা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সোনাহাটা-বাগবাড়ী সড়ক----

সংস্কারহীন সড়কে ভোগান্তি

সংস্কারহীন সড়কে ভোগান্তি

বগুড়ার ধুনট উপজেলার সোনাহাটা থেকে গাবতলী উপজেলার বাগবাড়ি পযর্ন্ত সড়কটি দীর্ঘদিন সড়ক সংস্কার না হওয়ায় চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। ৭ কিলোমিটার সড়কে ঝুঁকি নিয়েই চলাচল করছে ছোট-বড় যানবাহন। সড়কে ভাঙাচোরার কারণে জনগণকে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। অবিলম্বে সড়কগুলো সংস্কার করতে সংশ্লিষ্ট সবার জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগীরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার সোনাহাটা বাজার থেকে গাবতলি উপজেলার বাগবাড়ি বাজার পর্যন্ত ৭ কিমি. এ রাস্তা বগুড়া থেকে ধুনট, কাজিপুর উপজেলা ও সিরাজগঞ্জ জেলা শহরে অল্প সময়ে যাতায়াতের সহজ পথ। এবং জেলা শহর থেকে পূর্ব অঞ্চলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ন সংযোগ সড়ক। সংস্কারের অভাবে এ ৭ কিলোমিটার রাস্তার বেহাল দশার সৃষ্টি হয়েছে। রাস্তার মাঝে ছোট বড় গর্ত এবং রাস্তার পাশ ভেঙে যাচ্ছে। এমনকি কিছু স্থানে রাস্তার কাপেটিং ও ইট উঠে গিয়ে মাটি বের হয়েছে।

ধুনট উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, সোনাহাটা-বেড়েরবাড়ী-বাগবাড়ী সাত কিলোমিটারের সংযোগ সড়কটি ২০০৯ সালে প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মান করা হয়। নির্মাণের পর দুই দফায় সকড়টি সংস্কার করা হয়েছে।

জানা যায়, ৭ কিমির এ পথ দিয়ে প্রতিদিন অন্তত ২০০ সিএনজি চালিত অটোরিকশা চলাচল করে। পাশাপাশি ২০০ ব্যাটারিচালিত অটো, ১০০ ট্রাকসহ অনান্য গাড়িরগুলোর যাতায়াত করে। এ রাস্তা দিয়ে ধুনট উপজেলার গোসাইবাড়ি, ভান্ডারবাড়ি, মথুরাপুর, চিকাশী, কালের পাড়া, এলাঙ্গী, নিমগাছি ইউনিয়নের লোকজনসহ সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার অন্তত দশ হাজার মানুষ প্রতিদিন চলাচল করে।

রাস্তাটি বিগত তিন বছর আগে সংস্কার কাজ হয়। তারপর রাস্তাটি ভেঙে গেলেও আর সংস্কার কাজ করা হয়নি। এদিকে সোনাহাটা বাজার থেকে ধুনট থানা পর্যন্ত আট কিলোমিটার রাস্তা গত বছর সড়ক ও জনপদ (সওজ) সংস্কার করে। এবং বাগবাড়ী থেকে বনানী বাইপাস পযন্ত রাস্তা সংস্কার করা হলেও মাঝের সংযোগ সড়কটি সংস্কার না হওয়ায় জনসাধারণের ভোগান্তির কারণ হয়ে দাড়িয়েছে।

আরও পড়ুনঃ  ‘ঐতিহ্য ধরে রেখে পুরান ঢাকার উন্নয়ন করতে হবে’

সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক সবুজ আহমেদ (৩০) বলেন, এ রাস্তাটির অবস্থা খুবই বিপদজনক। প্রতিনিয়ত ছোটখাট দুর্ঘটনা ঘটে। মাঝে মাঝে ভাঙ্গা জায়গায় যাত্রী নামিয়ে ধাক্কা দিয়ে গাড়ি পার করতে হয়। দুর্ঘটনার কবলে পড়ে যাত্রীরা আহত হয়।

স্থানীয় ব্যবসায়ী বোরহান উদ্দিন বলেন, এ রাস্তা দিয়ে ৩ উপজেলার মানুষ ও যানবাহন চলাচল করে। ব্যবসায়িক মালামাল পরিবহনে আমাদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। গুরুত্বপূর্ণ এ রাস্তাটির সংস্কারের দাবি জানাচ্ছি।

বড়ইতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক কামাল পাশা প্রতিদিন বগুড়া থেকে এ সড়ক হয়ে আসেন শিক্ষকতা করতে। তিনি বলেন, সড়কটি ভালো থাকলে প্রায় ৫০ মিনিটের মতো লাগে। তবে, সড়কটির এমনি বেহাল অবস্থা যে বাগবাড়ী থেকে সোনাহাটায় আসতে এখন ৩০ মিনিট লাগছে। মাঝে মাঝে রাস্তা ঢেইয়ের মতো হওয়ায় যাত্রীবাহী গাড়িগুলো দোল খায়। এতে করে দুর্ঘটনার প্রবণতা অনেক বেশি। যত দ্রুত সম্ভব সড়কটি মেরামতের দাবি জানাচ্ছি।

নিমগাছি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোনিতা নাসরিন বলেন, ভোগান্তির কথাটি আমরা জানি। বরাদ্দ না থাকায় রাস্তাটি সংস্কারের কথা বলা যাচ্ছে না। তবে নতুন বাজেটে সংস্কারের চেষ্টা করব।

ধুনট উপজেলা উপ-সহকারি প্রকৌশলী মনিরুল সাজ রিজন বলেন, সোনাহাটা-বেড়েরবাড়ী-বাগবাড়ী সড়কটি বিশ্ব ব্যাংকের প্রকল্প। সম্প্রতি ঢাকা থেকে একটি টিম এসে সড়কটি পরিদর্শন করে গেছে। আমরা আশা করছি আগামী ছয় মাসের মধ্যে সড়টি সংস্কারের কাজ শুরু হয়ে যাবে।

তবে ট্রাক চলাচলের বিষয়টি আমাদের পক্ষ থেকে কোন অনুমতি নেই। এলজিইডির তৈরি সড়কে ছোট ট্রাক চলাচলের অনুমতি আছে। তবে বড় ট্রাকগুলো অবৈধভাবে চলাচল করছে। এটা বন্ধ করা স্থানীয় প্রশানের কাজ।

আরও পড়ুনঃ  আত্রাইয়ে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কার্যক্রম অনুষ্ঠিত

উপজেলা নির্বাহী কমকর্তা সঞ্জয় কুমার মহন্ত বলেন, অতিরিক্ত বালুবাহী ট্রাক চলাচলের বিষটি গুরুত্ব সহকারে তদারকি করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন