শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সকালে ঘুম থেকে উঠেই যে কাজ থেকে বিরত থাকবেন

দিনের শুরুতে এমন কোনো কাজ করা ঠিক না যা পুরো দিনটাকেই মাটি করে দিবে। তাই দিন ভালো রাখতে নিম্নোক্ত ১২ কাজ করা থেকে বিরত থাকুন।

১. সকালে ওঠার জন্য অ্যালার্মে কখনোই স্নুজ বাটন দিবেন না। এতে একটু পরপর অ্যালার্ম বাজার ফলে আপনি বারবার বন্ধ করে আবার ঘুমাবেন। ফলে আপনার ঘুম পরিপূর্ণ হবে না।

২. ঘুম থেকে ওঠার সাথে সাথেই আপনার পা সোজা করে এবং হাত টানটান করে কিছুক্ষণ শুয়ে থাকুন। তারপর উঠে বসুন। এতে করে সারা দিন আপনি সতেজ থাকবেন। আর যদি আপনি ভাঁজ হয়ে ঘুম থেকে ওঠেন, তবে সারা দিন আপনার ক্লান্ত লাগবে এবং ঘুম পাবে।

৩. ঘুম ভেঙার পরই ফোনে ই-মেইল বা মেসেজ দেখবেন না। এতে আপনার মস্তিষ্কের ওপর চাপ পরতে পারে। আর কোনো খারাপ মেসেজ থাকলে পুরো দিনটাই খারাপ যাবে।

৪. ঘুম থেকে উঠে কখনোই বিছানা অগোছালো অবস্থায় রেখে যাবেন না। বিছানা ছাড়ার সময়ই বিছানা গুছিয়ে ফেলুন। বাসা থেকে বের হওয়ার সময় পরিষ্কার রুম দেখলে মনটা ফুরফুরে থাকবে।

৫. ঘুম থেকে উঠে সবার আগে চা খাবেন না। রাতে খাবার পর দীর্ঘক্ষণ না খাওয়ার ফলে শরীর অ্যাসিডিক হয়ে থাকে। ফলে দুধ-চিনি দেয়া চা বা কফি শরীরকে আরও অ্যাসিডিক করে তোলে। চায়ের বদলে পানি এবং লাইম জুস খেতে পারেন।

৬. ঘরে এমনভাবে আলোর ব্যবস্থা করবেন যেন সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর অন্ধকার না থাকে। ঘুম ভেঙে অন্ধকার দেখলে দ্বিধায় ভুগবেন এবং প্রচণ্ড ঘুম পাবে। তাই প্রাকৃতিক আলো প্রবেশ করতে পারবে, এমনভাবে ঘর সাজান।

আরও পড়ুনঃ  গাড়িতে চড়লেই বমি পায়? জেনে নিন করণীয়

৭. সকালে ঘুম থেকে উঠে কিছুক্ষণ চোখ বন্ধ রেখে চুপ করে থাকুন। বেশ কয়েকটি লম্বা শ্বাস নিন। পানি পান করুন এবং তারপর কাজ শুরু করুন।

৮. ঘুম থেকে ওঠার পর শরীরের মাংসপেশী, বিশেষত মেরুদণ্ড একটু স্টিফ হয়ে থাকে। ফলে উঠে বসার আগে একটু স্ট্রেচ না করলে এই স্টিফনেস থাকতে পারে সারাদিন। তাই বিছানায় শোয়া অবস্থায় ৩-৪ বার একটু হাল্কা স্ট্রেচ করুন, তারপর উঠুন।

৯. ব্রেকফাস্ট না করার অভ্যাস থাকলে এখনই তা পাল্টে ফেলুন। ব্রেকফাস্ট করলে শরীর একেবারে চাঙ্গা থাকবে। কয়েকটি ভেজানো কাঠবাদাম, রুটি-তরকারি বা ফল ইত্যাদি খেতে পারেন।

১০. কোনো কারণে সকাল সকাল মেজাজ খারাপ হলেও নিজেকে শান্ত রাখার চেষ্টা করুন। অনেকের স্বভাব থাকে সকালে খুব বেশি আওয়াজে গান চালানোর। এটাও ত্যাগ করুন। সঙ্গীত অবশ্যই ভালো। তবে সব সঙ্গীত নয়। সকালে উঠে পাখির ডাক শুনুন, হালকা রাগ সঙ্গীতও খুব উপকারী।

১১. খালি পেটে ধূমপান বা কড়া কফি শরীরকে পুষ্টি থেকে কয়েক যোজন দূরে সরিয়ে দেয়। তাই খালি পেটে আগে পানি খান।

১২. অনেকে সকালে ঘুম থেকে ওঠার সঙ্গে সঙ্গেই জিমে দৌড়ান। যা একেবারেই করা উচিৎ নয়।

আনন্দবাজার/টি এস পি

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন