শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইরানের গ্যাসে আগ্রহ কমেছে তুরস্কের!

রাশিয়া থেকে অস্ত্র কিনছে যৌথভাবে আছে সিরিয়া-লিবিয়া নিয়েও। তবে পুরো মধ্য প্রাচ্যে ইরানই আছে তুরস্কের প্রকাশ্য মিত্র হিসেবে। দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক বেশ ভালো। বিশেষ করে তেলের ও গ্যাসের বাণিজ্য। কিন্তু গত ৩১ মার্চ ওই পাইপলাইনে এক বিস্ফোরণের জের ধরে তুরস্ক গ্যাস আমদানি বন্ধ করে দিয়েছে ইরান থেকে।

তবে তেহরানের আশা তুরস্ক আগামী মাসের মাঝামাঝি সময়ে আবার ইরান থেকে গ্যাস আমদানি শুরু করবে। ইরান থেকে গ্যাস আমদানির ২৫ বছর মেয়াদি চুক্তি আছে। ১৯৯৬ সালে স্বাক্ষরিত ২৫ বছর মেয়াদি চুক্তি অনুযায়ী ইরান-তুরস্ক গ্যাস পাইপ লাইন দিয়ে আঙ্কারার কাছে বছরে এক হাজার কোটি ঘনমিটার গ্যাস রপ্তানি করে তেহরান।

তুরস্কের কুর্দি বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী পিকেকে এ পর্যন্ত বহুবার এই পাইপলাইনে হামলা চালিয়েছে; তবে প্রতিবারই দ্রুত তা মেরামত করে গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক রাখা হয়েছে। কিন্তু এবার তুরস্কের পক্ষ থেকে পাইপলাইন মেরামতে অনাগ্রহ তেহরানকে বিস্মিত করেছে।
ইরানের গ্যাস সরবরাহকারী কোম্পানির ভারপ্রাপ্ত প্রধান মেহদি জামশিদি-দানা গতকাল তেহরানে বলেছেন, ইরান ওই পাইপলাইন মেরামত করে দেয়ার যে প্রস্তাব দিয়েছে তাও রহস্যময় কারণে আঙ্কারা গ্রহণ করছে না।

তিনি বলেন, তুরস্ক আগামী মাস থেকে গ্যাস আমদানি শুরু না করলে ইরান বিষয়টি নিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে যেতে বাধ্য হবে। তবে দু’দেশের মধ্যকার ‘বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক এবং আঙ্কারার পেশাদারী মনোভাবের’ কারণে তেহরানকে সে কাজ করতে হবে না বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।

আনন্দবাজার/শহক

Print Friendly, PDF & Email
আরও পড়ুনঃ  চিলিতে ভয়াবহ দাবানলে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১১২

সংবাদটি শেয়ার করুন