শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হল-ক্যাম্পাস খোলার দাবিতে রাবি শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

হল ও ক্যাম্পাস খোলার দাবিতে বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে রাজাশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থীরা। রোববার বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের পেছন থেকে শিক্ষার্থীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নেয়। এসময় তারা হল-ক্যাম্পাস খোলার ব্যাপারে প্রশাসনের সিদ্ধান্তের জন্য ২৪ ঘণ্টা সময় বেধে দেন। এরমধ্যে কোনো সিদ্ধান্ত না জানালে নিজেরাই সিদ্ধান্ত নেবেন বলে জানান শিক্ষার্থীরা।

এসময় ‘এক দফা এক দাবি হল-ক্যাম্পাস খোলা চাই’, ‘ভ্যাকসিন লাগলে ভ্যাকসিন দাও, তবু ক্যাম্পাস খোলা চাই’, ‘শিক্ষা নিয়ে প্রহসন, মানি না’, ‘লাঠি মার ভাঙ্গরে তালা, হলের ওই বন্দিশালা’সহ বিভিন্ন ¯েøাগান দেন শিক্ষার্থীরা।

কর্মসূচিতে শিক্ষার্থীরা বলেন, অনতিবিলম্বে আমাদের হল ও ক্যাম্পাস খুলে দিয়ে শিক্ষা কার্যক্রম স্বাভাবিক করতে হবে। আমরা দেখেছি প্রথম থেকে দ্বাদশ শেণি পর্যন্ত সকল শিক্ষার্থীকে অটো প্রমোশন দেয়া হয়েছে, সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। কিন্তু আমরা যেখানে আছি সেখানেই রয়ে গেলাম। আমাদের নিয়ে ভাবুন না হলে এই জনস্রোত আপনারা থামিয়ে রাখতে পারবেন না।’

বর্তমানে দেশের সবকিছুই চলছে, শুধুমাত্র শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান করোনার অজুহাত দিয়ে বন্ধ রাখছে সরকার। এভাবে আর চলবে না। সরকার কে? শিক্ষার্থীরাই সরকার। জনগণই সরকার।

শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, আমরা হল ও ক্যাম্পাস খোলার জন্য দীর্ঘ সময় আমাদের পিতৃতুল্য-মাতৃতুল্য শিক্ষক-শিক্ষিকাদের দিকে চেয়ে ছিলাম। কিন্তু তাদের মস্তিষ্ক নাড়া দেয়নি। তাদের তো বেতন বন্ধ নাই। বন্ধ শুধু আমার জীবন আমার যৌবন। আমরা ভিসি স্যারকে জানিয়ে দিতে চাই আমরা আপনার সন্তানতুল্য শিক্ষার্থীরা অনেক শান্ত; কিন্তু কতটা অশান্ত হতে পারি আপনি জানেন না। শিক্ষার্থীরা দ্রæত ক্যাম্পাস-হল খুলে দিয়ে শিক্ষাব্যবস্থা স্বাভাবিক করার দাবিও জানান।

আরও পড়ুনঃ  ঢাকা-পটুয়াখালি মহাসড়ক অবরোধ, শিক্ষার্থীদের তিন দফা দাবি

অবস্থান কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন। এসময় আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে প্রশাসন কোনো সিদ্ধান্ত না জানালে আগামীকাল আরো কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারি দেন শিক্ষার্থীরা।

আনন্দবাজার/শাহী/সাহাবুদ্দীন

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন