শুক্রবার, ২৬শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চারুকলা মূল ক্যাম্পাসে স্থানান্তরের দাবিতে চবি শিক্ষার্থীদের অবস্থান

চারুকলা মূল ক্যাম্পাসে স্থানান্তরের দাবিতে চবি শিক্ষার্থীদের অবস্থান

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) চারুকলা ইনস্টিটিউটকে মূল ক্যাম্পাসে স্থানান্তরের দাবিতে মূল ফটকের বাইরে সড়ক অবরোধ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) চট্টগ্রাম নগরের বাদশাহ মিয়া সড়কে ইন্সটিটিউটের সামনে দুপুর ১২টা থেকে অবস্থান নেন তারা।

আন্দোলনরতরা বলছেন, দীর্ঘ দিন ধরে মূল ক্যাম্পাসে ফেরার দাবি নিয়ে আন্দোলন করছেন কিন্তু প্রশাসন তাতে কোনো কর্ণপাতই করছেন না। তাই মূল ফটকের সামনে অবস্থান নিয়ে আন্দোলন করছেন তারা। দাবি মেনে মূল ক্যাম্পাসে ফিরিয়ে না নিলে লাগাতার আন্দোলন চালিয়ে যাবার কথা বলেন শিক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আন্দোলনের ২৮ দিন পার হলেও এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত জানাননি। তিনবার বৈঠক করেও সমাধান দেয়নি তারা। দ্রুত সময়ের মধ্যে ক্যাম্পাসে ফিরিয়ে আনা হবে এমন সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবার কথা বলেন বর্তমান সহ সাবেক শিক্ষার্থীরা।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভুঁইয়া জানান, শিক্ষার্থীদের দাবি নিয়ে কাজ করার জন্য ইতোমধ্যে কমিটি গঠন করে দেওয়া হয়েছে। কমিটি সেটা নিয়ে কাজও করছে। তারা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথাও বলছে।

প্রক্টর বলেন, পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করে তোলা শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোনোভাবে কাম্য নয়। আমরা সবাইকে সহনশীল হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

এর আগে শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউটকে মূল ক্যাম্পাসে ফিরিয়ে আনার দাবিতে চোখে কালো কাপড় পরে মানববন্ধন করেছেন শিক্ষার্থীরা। এতে চারুকলা ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছেন।
ছবি

গত বুধবার (১৬ নভেম্বর) থেকেই চারুকলা ইনস্টিটিউটের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। এর ফলে কার্যত আচল রয়েছে এ ইনস্টিটিউটের কার্যক্রম। শিক্ষার্থীরা জানান, মূল ক্যাম্পাসে না ফেরা পর্যন্ত তাঁরা ইনস্টিউটে অবরোধ করে রাখবেন। ফলে আজ ২৮ দিন ধরে আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউট নগরীর বাদশা মিয়া সড়কে অবস্থিত। যা মূল ক্যাম্পাস থেকে ২৪ কিলোমিটার দূরে। আবাসিক হল নিশ্চিতকরণ, নিজস্ব বাস চালু, ডাইনিং-ক্যান্টিনের সুব্যবস্থা ও পাঠাগার সংস্কারসহ ২২ দফা দাবিতে গত ২ নভেম্বর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস বর্জনের ডাক দেন ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা। শুরুতে ২২ দফায় মধ্যে ক্যাম্পাসে ফেরার কোনো দাবি না থাকলেও পরবর্তীতে তা ক্যাম্পাসে ফেরার আন্দোলনে মোড় নেয়।

আরও পড়ুনঃ  পাইকগাছায় আইনগত সহায়তা প্রদান বিষয়ক অর্ধ-বার্ষিক সভা

আনন্দবাজার/কআ

Print Friendly, PDF & Email

সংবাদটি শেয়ার করুন