ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৩

শেরপুরের বাজারে সহনীয় দামে মিলছে শীতের সবজি

শেরপুর জেলার বিভিন্ন বাজারে শীতের সবজির আমদানি বাড়তে শুরু করায় দাম কমতে শুরু করেছে বলে মনেকরেন ব্যবসায়ী ও বিক্রেতারা।

জেলার বাজার গুলাে ঘুরে দেখা গেছে, বেগুন, মূলা, লাউ শাক, লাউ, কুমরা, পটল, পেঁপে, শসা, মিষ্টি লাউ, করলা, বরবটি, চিচিঙ্গা, ঝিঙা ও ফুলকপিসহ বিভিন্ন ধরনের শীতের সবজি ইতিমধ্যে উঠতে শুরু করেছে।

শেরপুর ব্রহ্মপুত্র সেতু সংলগ্ন সাতপাকিয়া কাঁচা বাজারে পাইকারী ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান জানায় , গত সপ্তাহে শাক-সবজির দাম ‘কিছুটা বেশি’ ছিল, তবে এখন মৌসুমের নতুন শাক-সবজি বাজারে আসা শুরু করেছে তাই দামও ধীরে ধীরে সহনীয় পর্যায়ে আসছে ।

ঝিনাইগাতীর সবজি ব্যবসায়ী মোশাররফ হোসেন বলেন, আগে এক আঁটি মূলা শাকের দাম ছিল ১৫ টাকা কিন্তু এখন তা বিক্রি হচ্ছে ৮ থেকে ১০ টাকা। চারটি লাউ ডগার আঁটি এখন মাত্র ১৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে যা আগে ছিল ২০ টাকা করে।

সাতপাকিয়া গ্রামের বেগুন চাষি উজ্জ্বল মিয়া জানায়, প্রতিকেজি গোল বেগুনের দাম কমে ৬০ টাকা হয়েছে, আগে যার দাম ছিল ৭০ থেকে ৮০ টাকা।

সাতপাকিয়া গ্রামের কৃষক সুলতান মিয়া জানালেন, প্রতি কেজি কচুর লতি আগে ৮০ টাকা কেজি বিক্রি হলেও এখন তা ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।  এক সপ্তাহ আগে যে ফুলকপি বিক্রি হয়েছে প্রতি কেজি ৬০ টাকা এখন তা ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ঝিঙা, চিচিঙ্গাসহ অন্যান্য সবজি দামও আগের চেয়ে অনেক কমেছে। এ গুলোর প্রতি কেজির দাম ৪০ টাকার মধ্যে রয়েছে। প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকায়।

আরও পড়ুনঃ  চীনে ভুট্টা আমদানি বেড়ে ১০ লাখ টন ছাড়িয়েছে

ডাকপাড়া গ্রামে কথা হয় শসা চাষি আব্দুল আজিদ মিয়ার সঙ্গে। তিনি বলেন, “দেশি শসা আগে বিক্রি হয়েছে ৬০ টাকায় এখন তা বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা। পটল ছিল প্রতিকেজি ৫০টাকা এখন ৪০টাকা।”

ডাকপাড়া গ্রামের কৃষক মোজাহার আলী জানান, এক’শ লাউ ৩২শ টাকায় পাইকারী বাজারে বিক্রি হচ্ছে এবং খুচরা বাজারে প্রতিটি লাউ ৪০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে।

আনন্দবাজার/এম.কে

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ই-পেপার
প্রথম পাতা
খবর
অর্থ-বাণিজ্য
শেয়ার বাজার
মতামত
বিশ্ব বাণিজ্য
ক্যারিয়ার
খেলার মাঠ
প্রযুক্তি বাজার
শিল্পাঞ্চল
পণ্যবাজার
সারাদেশ
শেষ পাতা