লালমাই পাহাড়ে কাঁঠালের বাম্পার ফলন, চারিদিকে কাঁঠালের সুমিষ্টঘ্রাণ

লালমাই পাহাড়ে কাঁঠালের বাম্পার ফলন

কুমিল্লার ঐতিহ্যবাহী লালমাই পাহাড়ে এবার কাঁঠালের বাম্পার ফলন হয়েছে। পাহাড়ের আশপাশের বাজারগুলোতে এখন কাঁঠাল আর কাঁঠাল। লালমাই পাহাড়ের উঁচু-নিচু টিলার চূড়া, ঢাল ও টিলার ফাঁকে ফাঁকে, পাহাড়ের পাদদেশে ও আশপাশের সমতল ভূমিতে গাছে গাছে প্রচুর কাঁঠাল ধরেছে। পাকা সুমিষ্ট কাঁঠালের গন্ধ পুরো পাহাড়ি এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে। পাহাড়ি অঞ্চলজুড়ে এখন কাঁঠাল বিক্রির ধুম লেগেছে।

নিজেদের চাহিদা মিটিয়ে হাটবারে বিক্রির জন্য সাইকেলসহ বিভিন্ন বাহনে নেওয়া হচ্ছে কাঁঠাল। কেউ কেউ স্বজনদের বাড়িতে কাঁঠাল পাঠাচ্ছেন। কেউ জামাই আদর করে দাওয়াত দিয়ে কাঁঠাল খাওয়াচ্ছেন। এছাড়া বাজারে কাঁঠালের ভালো দামও পাচ্ছেন।

লালমাই পাহাড়ে কাঁঠালের বাম্পার ফলন

কুমিল্লা শহর থেকে ৮ কিলোমিটার পশ্চিমে লালমাই পাহাড়। ১২ মাইল লম্বা ও সর্বোচ্চ ৩ কিলোমিটার প্রস্থের এই পাহাড়ের যেদিকে যত দূর চোখ যায়, শুধু কাঁঠাল আর কাঁঠাল। ছোট-বড় সব গাছেই কাঁঠাল। গাছের গোড়া থেকে মগডালে শোভা পাচ্ছে কাঁঠাল। কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার চণ্ডীমুড়া মন্দির, ধর্মপুর, লালমাই, লালমাই সরকারি কলেজ ক্যাম্পাস, বড় ধর্মপুর, রতনপুর, বিজয়পুর, মধ্যম বিজয়পুর, রাজারখলা, চৌধুরীখলা, জামমুড়া, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, বন বিভাগ, বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (বার্ড), কুমিল্লা সেনানিবাস, কুমিল্লা ক্যাডেট কলেজ, ফায়ারিং স্কোয়াড ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ কুমিল্লা সেক্টরে এবার বেশি পরিমাণে কাঁঠাল ধরেছে।

কুমিল্লা বার্ড সূত্রে জানা গেছে, গত সপ্তাহে কাঁঠালের নিলাম হয়েছে। এবার নিলামে ১৬ জন ব্যবসায়ী অংশ নেয়। এর মধ্যে কালিরবাজার ইউনিয়নের মো. সেলিম সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে বার্ডের কাঁঠাল কিনে নেন। তিনি এবছর বার্ডে ৬০৪টি গাছের ৭ হাজার ৩৩৬টি কাঁঠাল ২ লক্ষ ৪০ হাজার ২ টাকা দামে ক্রয় করেন৷ ২০২০ সালে ৬৬১ গাছের ৬ হাজার ৫৫৩টি কাঁঠাল ১ লক্ষ ২ হাজার ২৯৩ টাকা, ২০১৯ সালে ৭০৪ টি গাছের ৭ হাজার ৭৩২টি কাঁঠাল ১ লক্ষ ৪ হাজার ৩৮২ টাকা এবং ২০১৮ সালে ৯১৫ টি গাছের ১০ হাজার ১২৭টি কাঁঠাল ১ লক্ষ ৩১ হাজার ৬৫১ টাকায় নিলামে বিক্রি হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ কুমিল্লা সেক্টরের সব গাছেই কাঁঠাল ধরেছে। বিজিবির মাল্টিপারপাস কমিউনিটি সেন্টারের সামনে ছোট ছোট গাছেও দেখা গেছে বড় আকৃতির কাঁঠাল ঝুলে আছে। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশের অনুচ্চ ও সরু পাহাড়শ্রেণি এলাকায় এক গাছেই ধরেছে অন্তত ৫০টির মতো কাঁঠাল।

কুমিল্লার লালমাই, রতনপুর, চণ্ডীমুড়া, বাতাইছড়ি বাজার, কোটবাড়ি বাজার, বিজয়পুর বাজারে প্রচুর কাঁঠাল উঠছে। এবার কাঁঠালের দাম আকারভেদে সর্বনিম্ন ১০০ থেকে সর্বোচ্চ ৬০০ টাকা পর্যন্ত।

রতনপুর বাজারের বিক্রেতা কামাল হোসেন বলেন, এখন পুরোদমে কাঁঠাল বিক্রি হচ্ছে। গতবারের চেয়ে এবার দাম একটু বেশি। লালমাই পাহাড়ের কাঁঠালের ঐতিহ্য আছে।

কুমিল্লা বার্ডের পরিচালক (কৃষি ও পরিবেশ) ও কাঁঠাল বিক্রয় কমিটির আহ্বায়ক আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, লালমাই পাহাড়ের কাঁঠাল কুমিল্লার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির অংশই। লাল মাটিতে কাঁঠালের ফলন বেশি হয়ে থাকে। লালমাই পাহাড়ের মাটি কাঁঠাল চাষের জন্য উপযোগী। এই মাটিতে কাঁঠাল ফলনের সব উপাদান রয়েছে। এসব লালমাই পাহাড়ে প্রতিবছরই কারণে কাঁঠালের বাম্পার ফলন হচ্ছে। পাহাড়ের ছোট গাছেও কাঁঠাল ঝুলছে। এই মৌসুমে শখ করে হলেও মানুষ লালমাইয়ের কাঁঠাল কেনেন।

আনন্দবাজার/শহক

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *