ফেব্রুয়ারি ১, ২০২৩

ভাসানচরে যেতে রাজি নয় রোহিঙ্গারা

ভাসানচরে প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা খরচ করে রোহিঙ্গাদের জন্য আবাসনের ব্যবস্থা করা হলেও সেখানে যেতে রাজি নয় তারা। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন, তাদেরকে উসকানি দিয়ে ভাসানচরে না যাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে বেশ কিছু মহল।

হাতিয়ার চরঈশ্বর ইউনিয়নের ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের আবাসন এবং কর্মসংস্থানের লক্ষ্য নিয়ে কাজ শুরু হয় ২০১৭ সালের নভেম্বরে। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে এই আশ্রয়ণ প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা। এরইমধ্যে ৮০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে।

প্রায় ১লাখ ২৩ হাজার রোহিঙ্গাকে সেখানে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা থাকলেও তা থমকে আছে রোহিঙ্গাদের আপত্তির মুখে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন বলছেন, কিছু বিদেশী দাতা সংস্থা এবং বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে না যেতে উস্কানি দিচ্ছে।

তিনি বলেন, তাদের মতে ভাসানচরে যাওয়ার জন্য নদীপথ ছাড়া আর কোন পথ নেই, তাই তারা নিয়মিত যোগাযোগ করতে পারবে না। পর্যাপ্ত যোগাযোগ ব্যবস্থাও নেই। কিন্তু ওরা সেখানে গেলেই যোগাযোগ ব্যবস্থা ঠিক হয়ে যাবে। সেখানে গেলে তারা ভালো হোটেলে থাকতে পারবে না,তাই তারা যেতে চাচ্ছে না।

একবার ভাসানচরে গেলে রোহিঙ্গারা স্বেচ্ছায় সেখানে যেতে চাইবে বলে দাবি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর। তিনি বলেন, সেখানে গেলে তারা যাতে মাছ চাষ করতে পারে, হাঁস-মুরগি, গরু ছাগল পালন করতে পারে সেসব ব্যবস্থাই করা হয়েছে। আমার মনে হয় তারা সেখানে একবার গেলে আর আসতে চাইবে না।

তবে কাউকেই জোর করে কোথাও পাঠানো হবে না বলেও নিশ্চিত করেছেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
আরও পড়ুনঃ  গাজীপুরে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা তিন হাজার ছাড়ালো

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ই-পেপার
প্রথম পাতা
খবর
অর্থ-বাণিজ্য
শেয়ার বাজার
মতামত
বিশ্ব বাণিজ্য
ক্যারিয়ার
খেলার মাঠ
প্রযুক্তি বাজার
শিল্পাঞ্চল
পণ্যবাজার
সারাদেশ
শেষ পাতা