ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৩

ভারতে নগদ অর্থের লেনদেন রেকর্ড তুঙ্গে

ডিজিটাল অর্থনীতির পথে এগিয়ে যেতে ২০১৬ সালের ৮ নভেম্বর আকস্মিক এক ঘোষণায় দেশজুড়ে ৫০০ ও ১ হাজার রুপির নোট বাতিলের ঘোষণা দেয় ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। তিন বছর পেরিয়ে এ সিদ্ধান্তের কার্যকারিতা নিয়ে এখনো প্রশ্ন রয়ে গেছে।

ভারতের কেন্দ্রীয় ব্যাংক রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার (আরবিআই) সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তিন বছরে ভারতের অর্থনীতিতে নগদ অর্থের লেনদেন না কমে উল্টো এক-চতুর্থাংশের বেশি বেড়েছে। খবর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

আরবিআইয়ের প্রতিবেদন বলছে, মোদি সরকারের ক্যাশলেস ডিজিটাল অর্থনীতির পথে এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন অনেকটাই অধরা রয়ে গেছে।

আরবিআইয়ের সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নোট বাতিলের আগে ২০১৬ সালের ১ নভেম্বর ভারতে নগদ অর্থের প্রবাহ ছিল ১৭ দশমিক ৯৭ লাখ কোটি রুপি। চলতি বছরের ১ নভেম্বর দেশটিতে এর পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২২ দশমিক ৫৭ লাখ কোটি রুপি। অর্থাৎ তিন বছরের ব্যবধানে ভারতে নগদ অর্থের লেনদেন বেড়েছে ২৫ দশমিক ৬৩ শতাংশ, যা ভারতীয় অর্থনীতিতে নতুন একটি রেকর্ড।

এর পরও ভারতে নগদ অর্থের প্রবাহ কমিয়ে আনা সম্ভব হয়নি। এর মধ্য দিয়ে নোট বাতিলের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের কার্যকারিতা নিয়ে পুরনো সমালোচনা নতুন করে সামনে এসেছে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের নভেম্বরে নোট বাতিলের পর পর ভারতে কারেন্সি টু জিডিপি রেশিও ১০ শতাংশের নিচে ছিল। ২০১৮ সালের মার্চ নাগাদ তা বেড়ে ১২ শতাংশ ছাড়িয়ে যায়। এর জন্য নগদ অর্থের প্রবাহ সীমিত করা নিয়ে আরবিআইয়ের কার্যকর কোনো নীতি না থাকাকে দায়ী করছেন সমালোচকরা।

আরও পড়ুনঃ  ফের ভারতে বেড়েছে সংক্রমণ-প্রাণহানি

আনন্দবাজার/ইউএসএস

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ই-পেপার
প্রথম পাতা
খবর
অর্থ-বাণিজ্য
শেয়ার বাজার
মতামত
বিশ্ব বাণিজ্য
ক্যারিয়ার
খেলার মাঠ
প্রযুক্তি বাজার
শিল্পাঞ্চল
পণ্যবাজার
সারাদেশ
শেষ পাতা