জানুয়ারি ৩০, ২০২৩

বিশ্বব্যাপী তাপ কয়লার ব্যবহার কমে আসছে

বিশ্বব্যাপী জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে জ্বালানি হিসেবে তাপ কয়লার ব্যবহার কমে আসছে। এতে বিশ্ববাজারে জ্বালানি পণ্যটির উদ্বৃত্ত দিন দিন বেড়েই চলছে। চলতি বছর শেষে বিশ্বব্যাপী কয়লার উদ্বৃত্ত দাঁড়াতে পারে ১ কোটি ৯০ লাখ টনে।

তাপ কয়লার বৈশ্বিক বাজার বড় ধরনের উদ্বৃত্তের মুখোমুখি হতে চলছে। বিশ্বব্যাপী জ্বালানি পণ্যটির ব্যবহার কমে আসার কারনে এ উদ্বৃত্ত তৈরি হয়েছে। মে মাসে করা ওই প্রাক্কলনে চলতি বছর কয়লার উদ্বৃত্ত বাজার ধরা হয়েছিল ২ কোটি ৪০ লাখ টন। তবে ২০২০ ও ২০২১ সালে কয়লার সরবরাহ ও চাহিদা কাছাকাছি থাকবে বলে মনে করছে পেরেট অ্যাসোসিয়েটস।

সামনের মাসগুলোয় বিশ্বব্যাপী কয়লার চাহিদা স্থিতিশীল হওয়ার পূর্বাভাস মিললেও সরবরাহ বড় আকারে কমে যাবে। এই বছরের বাকি দিনগুলোয় আটলান্টিক উপকূলের দেশগুলোয় চাহিদা কমে গেলেও চীনের বাজারে কয়লার রফতানি ঊর্ধ্বমুখী থাকবে। এছাড়া ইইউ-১৫ দেশগুলোয় চলতি বছর কয়লা আমদানি ২৫ শতাংশ কমে দাঁড়াতে পারে ৭ কোটি ২৩ লাখ টনে। যেখানে আটলান্টিক ও ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলোয় আমদানি ১৬ শতাংশ কমে দাঁড়াতে পারে ১৩ কোটি ২ লাখ টনে। তবে এ অঞ্চলে ২০২০ সালে আমদানি কমে ১২ কোটি ৫০ লাখ টনে পৌঁছাতে পারে বলে মনে করছে পেরেট। এতে রফতানিতে শীর্ষ থাকা অস্ট্রেলিয়া ও ইন্দোনেশিয়ার মতো দেশগুলোয় কয়লার বড় একটি  অংশই উদ্বৃত্ত থাকবে।

তবে চলতি বছরে কিছু দেশে কয়লা রফতানি বাড়বে। ইতিমধ্যে তুরস্কের বাজারে কয়লার আমদানি বেড়েছে। তবে ইইউ-১৫ দেশগুলোয় আমদানি কমে যাওয়ায় এটি মোট আমদানির মধ্যে স্বাভাবিক থাকবে। কারণ আগামী দিনগুলোয় তুরস্কের বাজারেও কয়লা আমদানি কমে যেতে পারে। আর শীর্ষ ব্যবহারকারী দেশ চীনের বাজারে কয়লা আমদানি ১৫ শতাংশ বেড়ে বছর শেষে দাঁড়াতে পারে ২২ কোটি ৩৯ লাখ টনে।

আরও পড়ুনঃ  স্বপ্ন এবার সত্যি, দৃশ্যমান পদ্মা সেতু

পেরেটের প্রতিবেদনটি চীনের চলতি বছরের সর্বশেষ প্রান্তিকের হিসাব ধরা করা হয়েছে। এ প্রান্তিকে দেশটির আমদানি কমে যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চীনের কয়লা আমদানি বেড়েছিল। কিন্তু শেষ প্রান্তিকে এখনই সঠিকভাবে প্রাক্কলন করা কঠিন। সর্বশেষ ২০১৮ সালে দেশটির কয়লা আমদানির পরিমাণ ছিল ২১ কোটি ২৫ লাখ টন।

অন্যদিকে চলতি বছর কয়লার রফতানিও কমে যাবে বলে মনে করছে পেরেট। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্র ও কলম্বিয়ায় কয়লা রফতানি কমে যাবে বড় আকারে। এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে কয়লার উৎপাদন ও রফতানি কমে গেছে। আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কম হওয়ায় ক্ষতির আশঙ্কা থেকে কয়লার উত্তোলন ও রফতানি কমিয়েছে দেশটি। চলতি বছর দেশটির রফতানি ৩০ শতাংশ কমে ৩ কোটি ৩০ লাখ টনে দাঁড়াতে পারে। এছাড়া আগামী বছর রফতানি আরো ২০ লাখ টনে কমে যেতে পারে।

আর জ্বালানি পণ্যটির বৈশ্বিক সরবরাহে চতুর্থ স্থানে থাকা কলম্বিয়ার রফতানি ৪ দশমিক ৫ শতাংশ কমে দাঁড়াতে পারে ৭ কোটি ৫০ লাখ টনে। তবে ইউরোপের দেশগুলোর আমদানি কমে যাওয়া এবং বৈশ্বিক বাজারে কয়লা সরবরাহে প্রতিযোগিতা বাড়ায় কলম্বিয়ার উৎপাদকরা চাপের মধ্যে রয়েছেন। ফলে বছর শেষে দেশটিতেও উল্লেখযোগ্য পরিমাণ কয়লা উদ্বৃত্ত থাকতে পারে বলে মনে করছে পেরেট।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ই-পেপার
প্রথম পাতা
খবর
অর্থ-বাণিজ্য
শেয়ার বাজার
মতামত
বিশ্ব বাণিজ্য
ক্যারিয়ার
খেলার মাঠ
প্রযুক্তি বাজার
শিল্পাঞ্চল
পণ্যবাজার
সারাদেশ
শেষ পাতা