ডিসেম্বর ১, ২০২১

বাড়ি-গাড়ির মালিক হলেই রিটার্ন

  • পরিবারের সদস্যদের সম্পদের তথ্য জানাতে হবে

চলতি করবর্ষে নিজের রিটার্ন দাখিলের পাশপাশি পরিবারের সদস্যদেরও সম্পদের বিবরণী আয়কর রিটার্নে উল্লেখ করতে হবে। অন লাইনে দেয়া আয়কর রিটার্ন ফরমে এসব বিষয়গুলি বিশেষ ঘরে উল্লেখ করতে হবে। সম্প্রতি জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) থেকে এনির্দেশ জারি করা হয়েছে। কেউ গাড়ি বা বাড়ির মালিক হলে তার তথ্য আয়কর রিটার্নে উল্লেখ না করলে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি’র (বিআরটিএ) অনলাইন তথ্য ভান্ডার থেকে তা এনবিআর কর্মকর্তাদের যাচাই এর সুযোগ থাকবে।

এর আগে এনবিআরের তদন্তে দেখা যায় অনেকে নামি দামি একাধিক গাড়ির মালিক হলেও তা আয়কর রিটার্নে উল্লেখ করেনি। এভাবে বছরের পর বছর কর ফাঁকি দিলেও তা তথ্য প্রমাণের অভাবে চিহিত করা সম্ভব হয়নি। আবার অনেকে নিজের নামে গাড়ি বা বাড়ির নিবন্ধন না নিয়ে স্ত্রী বা স্বামী ও সন্তানদের নামে নিবন্ধন নিয়ে কর ফাঁকি দিয়েছেন। এক্ষেত্রে কারো যদি একটি গাড়ি থাকে, তাহলে তার নিজের সম্পদের পাশাপাশি স্ত্রী বা স্বামীর সম্পদের হিসাবও দিতে হবে। অনেক গাড়ি বাড়ির মালিক স্ত্রী বা সন্তানদের নামে সম্পদ লুকিয়ে রাখেন বলে অভিযোগ আছে। ফলে করদাতা ও তাঁর পরিবারের প্রকৃত সম্পদ কত, তা জানতে পারেন না কর কর্মকর্তারা।

মোটা দাগে ধনী করদাতাদের জন্য সম্পদের বিবরণী প্রতিবছরই দাখিল করা বাধ্যতামূলক। বার্ষিক আয়-ব্যয়ের পাশাপাশি কাদের সম্পদের বিবরণী দাখিল করতে হবে, সে সম্পর্কে এবারে তিনটি শর্ত নির্ধারণ করেছে এনবিআর। প্রথমত, করদাতার মোট সম্পদের পরিমাণ ৪০ লাখ টাকা অতিক্রম করলে; দ্বিতীয়ত, একটি মোটরগাড়ির মালিক হলে এবং তৃতীয়ত, সিটি করপোরেশন এলাকায় গৃহ-সম্পত্তিতে বিনিয়োগ বা অ্যাপার্টমেন্ট থাকলেই সম্পদের বিবরণী দাখিল করতে হবে।

আরও পড়ুনঃ  দেশে করোনা শনাক্তের ৮০ শতাংশই ভারতীয় ধরন

কোনো করদাতা একটি শর্ত পূরণ করলেই বাধ্যতামূলকভাবে নিজের, স্ত্রী বা স্বামী, নাবালক সন্তান বা পোষ্যদের নামে কোথায় কী সম্পদ আছে, তা জানিয়ে আয়কর রিটার্নে সঙ্গে সম্পদের বিবরণীও জমা দিতে হবে। অর্থাৎ এর মধ্যে একটি হলেই আপনাকে নিজের পাশাপাশি স্ত্রী বা স্বামী, নাবালক সন্তান বা পোষ্যদের নামে থাকা সম্পদের বিবরণী জানাতে হবে। এনবিআরের আইটি ১০বি বা আইটি ১০বি ২০১৬ ফরম পূরণ করে এ তথ্য জানাতে হবে।

অভিযোগ রয়েছে, প্রতিবছর বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষে (বিআরটিএ) গড়ে ১৫ থেকে ২০ হাজার নতুন ব্যক্তিগত গাড়ি নিবন্ধন হয়। প্রতিবছরই গাড়ির মালিকের সংখ্যা বাড়ছে। এনবিআর বিআরটিএর সার্ভার ব্যবহার করে গাড়ি নিবন্ধনের তথ্য জানতে পারবে। কর শনাক্তকরণ নম্বর (টিআইএন) ছাড়া গাড়ি নিবন্ধন নেওয়া যায় না।

এনবিআরের আয়কর বিভাগ এরই মধ্যে করদাতার রিটার্নের তথ্য ডিজিটাল উপায়ে সংরক্ষণের উদ্যোগ নিয়েছে অন্যদিকে অনাবাসী বাংলাদেশি এবং বাংলাদেশি নয় এমন করদাতারা শুধু বাংলাদেশের স্থাবর সম্পদের বিবরণী দাখিল করবেন। এবারে এসব করদাতাদের বার্ষিক করযোগ্য আয় চার লাখ টাকার বেশি হলেই ব্যয় বিবরণী বাধ্যতামূলকভাবে দাখিল করতে হবে। এক্ষেত্রে করদাতার সন্তানের শিক্ষার খরচ, বিদেশ ভ্রমণ, সামাজিক অনুষ্ঠান, উপহার সামগ্রিসহ বিভিন্ন খাতের ব্যয়ের তথ্যও দিতে।

আনন্দবাজার/শহক

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আজকের পত্রিকা
ই-পেপার
শেয়ার বাজার
পন্য বাজার