জুলাই ৭, ২০২২

পছন্দের শীর্ষে কাঁচা বাদাম-পুষ্পা

পছন্দের শীর্ষে কাঁচা বাদাম-পুষ্পা

ঈদের আর মাত্র এক সপ্তাহ বাকি। আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে চলছে আগাম পোশাক কেনা কাটা। এরইমধ্যে বাজারে ক্রেতাদের ঢল নেমেছে। এরই মধ্যে উপজেলার কটিয়াদী বাজারের কাপড়পট্টি এবং কলেজ রোড সহ বিভিন্ন এলাকার বিপনী বিতানগুলোতে ক্রেতার চাপ বেড়েছে। দিনরাত সমানতালে চলছে পোশাক বেচাকেনা। একই চিত্র নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষের নির্ভরযোগ্য মার্কেটেও। আর নারীদের জন্য বাজারে এসেছে সেই কাঁচা বাদাম’ থ্রি-পিস। শুধু কাঁচা বাদামই নয়, বিখ্যাত তেলেগু সিনেমা পুষ্পার নামের সঙ্গে মিল রেখে ঈদের বাজারে নারীদের জন্যে এসেছে পুষ্পা থ্রি-পিস। ছয়টি রঙের কাঁচা বাদাম এবং বাহারি রঙের পুষ্পা থ্রি-পিস ইতিমধ্যে ক্রেতাদের মধ্যে সাড়া ফেলেছে। কাপড়ের ধরণ বুঝে আড়াই হাজার থেকে সাড়ে ৩ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে হাল আমলের ক্রেজ কাঁচা বাদাম থ্রি পিস।

উপজেলার বিভিন্ন মার্কেটে দেখা যায়, ভারতের বীরভূমের বাদাম বিক্রেতা ভুবন বাদ্যকর ‘কাঁচা বাদাম’ গানটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তিনি ভাইরাল হন। কাঁচা বাদাম গানটি বেশ জনপ্রিয় হওয়ায় এ নামে পোশাকে থ্রি-পিস বিক্রি হচ্ছে বেশি। অনেকে না কিনলেও নাম শুনে দেখতে চাইছেন। শুধু কাঁচা বাদামই নয়, বিখ্যাত তেলেগু সিনেমা ‘পুষ্পা’র নামের সঙ্গে মিল রেখে ঈদের বাজারে নারীদের জন্যে এসেছে ‘পুষ্পা’ থ্রি-পিস। লাল, নীল, কালো, সবুজসহ বাজারে ছয় ধরনের কাঁচা বাদাম থ্রি-পিস এসেছে। এর মধ্যে কালো রঙের চাহিদা বেশি। মূল্য ৫৫০ থেকে ৭০০ টাকা। তবে কাঁচা বাদামের চেয়ে পুষ্পা থ্রি-পিসের চাহিদা কম। বাজারে দুই ধরনের পুষ্পা থ্রি-পিস এসেছে। দাম ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা।

আরও পড়ুনঃ  ৩৪টি ক্যাম্প নিয়ন্ত্রণ করছে ৩২টি সন্ত্রাসী গ্রুপ

কটিয়াদী বাজারের চন্দ্রবিন্দু শো-রুমের স্বত্বাধিকারি মাহমুদুল হাসান মামুন বলেন, কাঁচা বাদাম গানের মডেলের পড়নে যে ড্রেস ছিল সেই আদলেই করা হয়েছে কাঁচা বাদাম থ্রি-পিস। কাঁচা বাদাম নতুন পোশাক হওয়ায় এটির বিক্রিও বেশ ভালো। এছাড়াও পুষ্পা, অরগাঞ্জা এবং গোল্ড ড্রেস থ্রি পিসের চাহিদাও রয়েছে। ৪ থেকে ৮ হাজার টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে এ থ্রি-পিস।

উপজেলার মার্কেটে ঈদবাজার করতে আসা তরুণী উম্মে হাবিবা বলেন, গত দুই বছর পূর্বে ঈদ উদযাপন করতে পারিনি। এবারের ঈদকে আর মিস করতে চাই না। এবারের ঈদে আমার প্রথম পছন্দ কাঁচা বাদাম থ্রি-পিস। তাই সবার আগে কিনে ফেললাম আর আমার ছোট বোনের জন্য একটি পুষ্পা থ্রি-পিস কিনব। কারণ শেষদিকে গিয়ে অনেক ভিড় হয়।

আরেক ক্রেতা আরিফুল ইসলাম বলেন, অন্যবছরের তুলনায় এ বছর ঈদেও সকল জিনিসপত্রের দাম বেশি। তবে কি আর করার আছে। ঈদে কিছু কেনাকাটা করা দরকার ছিল, তাই মার্কেটে এসেছি। এখন কিছু কাপড় কিনব আর ঈদের শেষমুহুর্তে আরও কিছু কাপড় কিনব।

কটিয়াদী মডেল থানার ওসি এসএম শাহাদাত হোসেন বলেন, আমরা জনগনের জান-মাল রক্ষার জন্য সব সময় সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছি। এ ঈদকে সামনে রেখে উপজেলার বিভিন্ন বিপনি-বিতান দোকানগুলোতে এবং গুরুত্বপূর্ণ স্থানসহ বিভিন্ন রাস্তা-ঘাটে কালাই থানা পুলিশ সব সময় টহল দিচ্ছে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.

ই-পেপার
প্রথম পাতা
খবর
অর্থ-বাণিজ্য
শেয়ার বাজার
মতামত
বিশ্ব বাণিজ্য
ক্যারিয়ার
খেলার মাঠ
প্রযুক্তি বাজার
শিল্পাঞ্চল
পণ্যবাজার
সারাদেশ
শেষ পাতা