নওগাঁয় মানা হচ্ছেনা লকডাউন, লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত

নওগাঁয় মানা হচ্ছেনা লকডাউন, লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত
নওগাঁয় মানা হচ্ছেনা লকডাউন, লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত

মহামারি করোনা ভাইরাস রোধে সারাদেশে সোমবার (৫ এপ্রিল) থেকে শুরু হয়েছে সাতদিনের লকডাউন। তবে ‘করোনা পরিস্থিতিতে নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং জরুরি কাজ ছাড়া বের না হওয়া’ এমন সরকারি নির্দেশ থাকলেও তা মানছেনা নওগাঁবাসী। থেমে নেই নতুনকরে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। জেলায় লাফিয়ে বাড়ছে কোভিড-১৯ শনাক্তের সংখ্যা।

লকডাউনের প্রথমদিনের প্রথম সকালে জনশূন্য নওগাঁর ব্যাস্ততম স্থানগুলো লক্ষ করা গেলেও বেলা বাড়তেই শহরের বিভিন্ন সড়কের মোড়ে সাধারণ মানুষের ভিড় দেখা যায়। একই অবস্থা লক্ষ করা যায় ২য় দিনেও।

সরেজমিনে গিয়ে লকডাউনের ৩য় দিন (৭ এপ্রিল) বুধবার শহরের ঢাকা বাস টার্মিনাল, গোস্তহাটির মোড়, বাটার মোড়, মুক্তির মোড়,বালুডাঙ্গা বাস টার্মিনাল সহ কাঁচা বাজারে সাধারণ মানুষের ভিড় চোখে পরে।

স্বাভাবিক দিনের মতোই দিব্যি আরামে ঘুরাফেরা করতে দেখা যায় শহরবাসীদের। তাদের অনেকের মুখেই নেই মাস্ক। রাস্তায়, ইজিবাইক, রিকশা, অটোরিকশায় স্বাস্থ্য বিধি না মেনেই নানা অযুহাতে চালকরা গাড়িতে যাত্রী নিয়ে চলাচল করছেন। একই অবস্থা জেলার বিভিন্ন উপজেলায়।

তবে লকডাউন কার্যকর করতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা, পুলিশি টহল সহ প্রশাসনিক নান পদক্ষেপ অব্যাহত থাকলেও জনসাধারণ সামরিক গা ঢাকা দিয়ে আবার রাস্তায় নামছেন।

এদিকে নওগাঁ সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘন্টায় ১০০টি নমুনা পরিক্ষার মাধ্যমে নতুনকরে আরও ২৪ জনের করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে, যার মধ্যে সদর উপজেলার ১৫জন।

আরও জানা যায়, ১লা এপ্রিল থেকে ০৭ এপ্রিল পর্যন্ত কোভিড-১৯ এর আক্রান্ত হয়েছেন ৫৫ জন। যার মধ্যে ৪০জনই নওগাঁ সদর উপজেলায়। ০৭ এপ্রিল (বুধবার) পর্যন্ত সবমিলিয়ে জেলায় মোট শনাক্তের সংখ্যা ১৭৪৬ জন, যার মধ্যে সুস্থ্য হয়েছেন ১৬০৭ জন, ছাড়পত্রের পর বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইন ৫৪৬জন, প্রাতিষ্ঠানেক কোয়ারেন্টাইন ০৯ জন এবং বর্তমানে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩ জন। কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে জেলায় মৃত্যু ঘটেছে ২৭ জনের।

আনন্দবাজার/শাহী/নাহিদ

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *