জানুয়ারি ২৯, ২০২৩

ঢাকার সবজি ও মাছের বাজারে বেহাল দশা

পরিবহন ধর্মঘটের প্রভাবে রাজধানীর সবজিবাজারে বেহাল দশা। এই অজুহাতে রাজধানীর বাজারগুলোতে বেড়েছে প্রায় সকল সবজির মূল্য। সবজিভেদে প্রতি কেজিতে ১০ থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত মূল্য বেড়েছে। পরিবহন ধর্মঘট থেমে গেলেও কমেনি কোন সবজির মূ্ল্য।

এদিকে সবজির আগুন লেগেছে মাছের বাজারেও। বেড়েছে প্রায় সকল মাছের মূল্য। রাজধানীর বাজারগুলোতে মাছভেদে প্রতি কেজিতে ২০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত মূ্ল্য বেড়েছে।

বিক্রেতাদের মতে, পরিবহন ধর্মঘটের কারণে বেশির ভাগ জেলা থেকে বাজারে মালপত্র না আসায় বাজারে ঘাটতি তৈরি হয়েছে। আর এই কারণেই পাইকারি বাজারের মূল্যের প্রভাব পড়েছে খুচরা বাজারেও। অন্যদিকে ক্রেতারা বলছেন, বাজারে সবজির কোন ঘাটতি নেই, তাই দাম বাড়ার কোনো কারণ নেই।

টিঅ্যান্ডটি কাঁচা বাজারের বিক্রেতা হাবিব বলেন, আজ পাইকারি বাজারে মালামাল সংকট রয়েছে। অবরোধের কারণে অনেক জেলা থেকে মাল আসতে পারেনি। এজন্য সেখানে দাম বেশি রয়েছে যার প্রভাব পড়েছে খুচরাতে।

ঐ বাজারেরই ক্রেতা হামিদা বলেন, পাইকারি বাজারে মালের সংকট থাকলে খুচরাতেও মালের সংকট থাকার কথা। কিন্তু এখানে অন্যদিনের মতোই মালামাল আছে, শুধু দামে বাড়তি। ব্যবসায়ীদের যুক্তি অযৌক্তিক।

রাজধানীর সেগুনবাগিচা, শান্তিনগর, খিলগাঁও, ফকিরাপুল, মতিঝিল টিঅ্যান্ডটি কাঁচা বাজারে প্রতিকেজিতে ১০ থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত বেড়ে প্রতিকেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ১০০ টাকা, গাজর ৯০ থেকে ১০০ টাকা, পটোল ৫০ থেকে ৬০ টাকা, ঝিঙা-ধুন্দল ৭০ থেকে ৮০ টাকা, করলা ৭০ থেকে ৮০ টাকা, কাকরোল ৭০ থেকে ৮০ টাকা, বেগুন ৬০ থেকে ১০০ টাকা, ঢেঁড়স ৬০ থেকে ৭০ টাকা, পেঁপে ৩০ থেকে ৪০ টাকা, শসা ১০০ থেকে ১২০ টাকা, কচুর লতি ৬০ থেকে ৮০ টাকা, কাঁচামরিচ প্রতিকেজি ৮০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃ  ‘বঙ্গবন্ধুর করা আইনে দেশ বিশাল সমুদ্র পেয়েছে’

রাজধানীর মাছের বাজারগুলোতে মাছভেদে কেজিপ্রতি ১০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত বাড়তি মূল্য রাখা হচ্ছে। বাজারে প্রতিকেজি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে(আকারভেদে) ৮৫০ থেকে ১০০০ টাকা কেজি দরে। এছাড়া কাচকি বিক্রি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা, মলা ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকা, ছোট পুঁটি ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা, শিং ৪০০ থেকে ৭০০ টাকা, পাবদা ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা, চিংড়ি (গলদা) ৪৫০ থেকে ৬৫০ টাকা, বাগদা ৫০০ থেকে ৮০০ টাকা, দেশি চিংড়ি ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা, রুই(আকারভেদে) ২৬০ থেকে ৪০০ টাকা, মৃগেল ২২০ থেকে ৩০০ টাকা, পাঙাস ১৪০ থেকে ১৮০ টাকা, তেলাপিয়া ১৫০ থেকে ১৮০ টাকা, কৈ ১৮০ থেকে ২২০ টাকা, কাতল ২৮০ থেকে ৩০০ টাকা কেজিদরে বিক্রি হতে দেখা গেছে।

 

আনন্দবাজার/ডব্লিউ এস

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ই-পেপার
প্রথম পাতা
খবর
অর্থ-বাণিজ্য
শেয়ার বাজার
মতামত
বিশ্ব বাণিজ্য
ক্যারিয়ার
খেলার মাঠ
প্রযুক্তি বাজার
শিল্পাঞ্চল
পণ্যবাজার
সারাদেশ
শেষ পাতা