জমে উঠেছে চরফ্যাশন পৌর নির্বাচন

ভোলা চরফ্যাসন পৌর নির্বাচনকে ঘিরে উৎসবে আমেজে মেতে উঠেছে ভোটাররা। শেষ মুহুর্তে পাড়ায় মহল্লায়, অলি-গলিতে জমে উঠেছে নির্বাচন৷ দিনরাত প্রার্থীরা ছুটছে ভোটারদের কাছে।শহরের ব্যানার- পোস্টার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে। চলছে গণসংযোগ মটর সাইকেল মহড়া আর স্লোগান।মাইকে বাজছে মনকাড়া সুরে হরেক রকম গান৷ আগামী রবিবারের ভোটকে ঘিরে উৎসবের আমেজে মেতেছে গোটা চরফ্যাশনে।চরফ্যাশনে।চরফ্যাশনে।আওয়ামীলীগ বিএনপির জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতারা গনসংযোগে অংশ নিচ্ছেন আর দলীয় প্রার্থীর পক্ষে ভোট চাচ্ছেন৷

আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি চরফ্যাশন পৌর নির্বাচনে এই প্রথম ইভিএমএ ভোট নেওয়া হবে।ভোটারদের কাছে এই পদ্ধতি নতুন৷ফলে কিভাবে ভোট দিবে এ নিয়ে টেনশনে রয়েছেরয়েছে৷শেষ মুহুর্তে জয় পেতে প্রার্থীরা ভোটারের বাড়ি বাড়ি দোকানে দোকানে ছুটছেন। ভোটারদের কাছে তুলে ধরছেন তাদের যোগ্যতা।

চরফ্যাশন পৌরসভায় নৌকা প্রতীকে নতুন প্রার্থী৷ তিনি চরফ্যাসন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। বিএনপি’র যিনি মনোনয়ন পেয়েছেন তিনিও নতুন। নৌকার মনোনীত প্রার্থী মোঃ মোরশেদ বলেন, স্হানীয় সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এমপির অবিস্বরণীয় উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পৌরবাসি আমাকে নৌকা প্রতীকে ভোট দিবেন৷
আমি বিজয়ী হলে চরফ্যাশন পৌরসভাকে মডেল পৌরসভায় রূপান্তরিত করবো। জয়ের ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশাবাদী।

হাতপাখা প্রতীকে ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ মির মহাম্মদ শরীফ হোসাইন । তিনিও জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী।আশাবাদী।বিএনপির মনোনীত প্রার্থী সিকদার হুমায়ন কবির৷তিনি বলেন দেশের বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট আমাদের অনুকূলে নেই৷জনগনের ব্যাপক সমর্থন আমাদের পক্ষে থাকলেও কাঙ্খিত বিজয় নিয়ে হতাশায়৷ভোট কেন্দ্রে বিএনপির নেতা কর্মি সমর্থকরা ভোট দিতে পারবে কি-না সে বিষয়ে আশংকা প্রকাশ করেছেন৷ এই আসনে টানা তিনবারের এমপি জ্যাকবের ব্যাপক উন্নয়নের কারনে আওয়ামীলীগ অনেকটা ভাল অবস্হানে রয়েছে৷রয়েছে৷

বিএনপি ক্ষমতামলে তৎকালীন সংসদ সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম এলাকায় তেমন উন্নয়ন করতে না পারায় ধানের শীষ নিয়ে ভোটারদের কাছে ভোট চাইলে অনেক প্রশ্নের সম্মূখীন হতে হয়৷ অপর স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মীর শরীফ হোসেন ৷তিনি বিলুপ্ত রাজনৈতিক দল জামায়েত ইসলামী নেতা৷পৌর জামায়েত ইসলামীর সভাপতি ছিলেন৷দলের নিবন্ধন বিলুপ্তি হলেও তার রয়েছে ব্যাক্তি ইমেজ৷তিনি একটি টেকনিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ৷তিনি নারকেল গাছ প্রতিক নিয়ে লড়ছেন৷জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী না হলেও শহরে ব্যাক্তি পরিচিতি পেতে ভোটারদের মাঝে প্রতিনিয়ত গনসংযোগ করছেন৷

চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, নির্বাচনে পৌরসভা মেয়র প্রার্থী ৩ জন, ওয়ার্ড কাউন্সিলর ২৩ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ৯ জন প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন৷ভোট হবে ইবিএমএ৷তিনি বলেন, শেষ মুহুর্তে প্রার্থীরা ব্যস্ত সময় পার করছেন৷কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া এলাকার পরিরেশ অনেকটা শান্ত রয়েছে৷

আনন্দবাজার/শহক

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *