জানুয়ারি ২৯, ২০২৩

জনসংখ্যার কমতি ঠেকাতে ১ কোটি অভিবাসী শ্রমিক নেবে রাশিয়া

অন্যান্য দেশে যখন অভিবাসী শ্রমিকদের ঠেকাতে নানান কলাকৌশল আঁটছে তখন রাশিয়া পরিকল্পনা করছে বিরাট সংখ্যক অভিবাসী কর্মীকে দেশে প্রবেশের অনুমতি দেয়ার।

রুশ সংবাদমাধ্যম মস্কো টাইমস আজ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ইতোমধ্যে নতুন অভিবাসী আকর্ষণের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে রাশিয়ায় কাজের জন্য ঢুকেছে ২৪ লাখ অভিবাসী কর্মী। এই সংখ্যা একটি রেকর্ড। বিগত কয়েক দশকে একই সময়সীমায় রাশিয়ায়তে এত সংখ্যক অভিবাসী কর্মী প্রবেশ করেননি।

মাত্র গত বছরই সাম্প্রতিক ইতিহাসের সবচেয়ে কম সংখ্যক অভিবাসী রাশিয়ায় গিয়েছিলেন। মস্কো টাইমস জানিয়েছে, ২০ বছর পর এই প্রথম দেশের কোনো নির্দিষ্ট সময়ে রাশিয়ায় প্রবেশ করা অভিবাসী শ্রমিকদের পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে ক্রেমলিন।

এতে দেখা যাচ্ছে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে জুন মাসে মোট ২৪ লাখ অভিবাসী শ্রমিক ঢুকেছেন। এদের সিংহভাগই গেছেন সাবেক সোভিয়েতভুক্ত দেশগুলো থেকে। সবচেয়ে বেশি ৯ লাখ ১৮ হাজার শ্রমিক গিয়েছেন উজবেকিস্তানের।

এরপর ৫ লাখ ২৪ হাজার গিয়েছেন তাজিকিস্তান, ২ লাখ ৫৬ হাজার কিরগিজিস্তান, ১ লাখ ৬৫ হাজার ইউক্রেন এবং ১ লাখ ৫ হাজার গিয়েছেন কাজাখস্তান থেকে।

শ্রমিক বাছাইয়ে মূলত রুশ ভাষী কিনা তার ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়। তবে যাদের প্রধান ভাষা রুশ নয়, কিন্তু এই ভাষাটি জানেন তেমন লোকজনও যাচ্ছেন।

এদের মধ্যে চীন থেকে সবেচেয়ে বেশি গিয়েছেন গত ৬ মাসে ৫০ হাজার জন। এছাড়া জার্মানি, ইতালি ও তুরস্ক থেকে ১০ হাজার করে অভিবাসী রাশিয়ায় গিয়েছেন এই ছয় মাস সময়ের মধ্যে। যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র থেকেও যাচ্ছেন অনেকে।

আরও পড়ুনঃ  করোনায় মধ্যপ্রাচ্যের বিবর্ণ ঈদ

পরিসংখ্যানে দেখানো হয়েছে, জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত ভ্রমণ, ব্যবসা, চাকরি ও পড়াশোনার উদ্দেশ্যে দেড় কোটি মানুষ রাশিয়ায় প্রবেশ করেছেন।

মস্কো টাইমসের প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়, আগামী ৫-৬ বছরের মধ্যে ১ কোটির মতো নতুন অভিবাসী কর্মী নিতে চায় রাশিয়া। মূলত অব্যাহতভাবে জনসংখ্যা কমতে থাকার কারণে এমন উদ্যোগ নিয়েছে পুতিন সরকার।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ই-পেপার
প্রথম পাতা
খবর
অর্থ-বাণিজ্য
শেয়ার বাজার
মতামত
বিশ্ব বাণিজ্য
ক্যারিয়ার
খেলার মাঠ
প্রযুক্তি বাজার
শিল্পাঞ্চল
পণ্যবাজার
সারাদেশ
শেষ পাতা