ডিসেম্বর ১, ২০২১

জনবল সংকটে সোনাগাজী উপজেলা প্রাণিসম্পদ কেন্দ্র

জনবল সংকটে সোনাগাজী উপজেলা প্রাণিসম্পদ কেন্দ্র

সহ্রসাধিক খামার দেখার দায়িত্ব ৪ জনের

সমুদ্র উপকূলবর্তী ফেনীর সোনাগাজী উপজেলায় প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রের ভূমিকা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। উপজেলার এক হাজারের বেশি প্রাণির খামার তদারকির দায়িত্ব এ প্রতিষ্ঠানটির। তবে প্রয়োজনীয় লোকবলের অভাবে এ সেবা দিতে ব্যর্থ হচ্ছে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস।

উপজেলা সদর, চরমজলিশপুর, বগাদানা, মঙ্গলকান্দি, মতিগঞ্জ, চরদরবেশ, চরচান্দিয়া, আমিরাবাদ, নবাবপুর ও পৌরসভার নিবন্ধিত-অনিবন্ধিত মিলে দুই শতাধিক গাভির খামার, ৮৯টি মহিষ, ২০টি ছাগল, ২৭টি ভেড়া, লেয়ার মুরগির তিন শতাধিক, ব্রয়লার মুরগির ১৫০টি, হাঁসের ১৫টি, সোনালি মুরগির ৯টি, টার্কির ২০টি আর কবুতরের ২০টি খামার রয়েছে। এসবের নিয়ন্ত্রণ করে থাকে উপজেলা প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্র।

এসব খামার দেখার জন্য সার্বক্ষণিক প্রস্তুত থাকতে হয় কর্মরত চিকিৎসকদের। শিডিউল তৈরি করে একেকদিন একেকটি খামার পরিদর্শন করতে হয় তাদের। মোবাইলে কলে যেকোনো মূহুর্তে প্রস্তুতি নিয়ে জরুরিভিত্তিতে যেতে হয় খামারে। সচেতনতার লক্ষ্যে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন, ক্যাম্পিং, আলোচনা সভা, প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা,সমসাময়িক প্রকল্পের বাস্তবায়ন, বিভিন্ন দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত খামারিদের তালিকা করে তাদের ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করতে হয়। এ ছাড়া উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন জাতীয় দিবস, সমন্বয় সভা, মাসিক সভা, ট্যাগ অফিসারের দায়িত্ব পালন করতে হয় এখানকার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের।

কিন্তু অফিসের প্রধান উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাই নেই গত ১৪ মাস। গত বছরের ৬ সেপ্টেম্বর তৎকালীন ডা. মুহাম্মাদ আমিনুল ইসলাম বদলি হয়ে অন্যত্র চলে যান। এর পর থেকে ভেটেরিনারি সার্জন ডা. কল্লোল বড়ুয়া ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তা ছাড়া এখানকার ১১টি পদের বিপরীতে মাত্র চারজন কর্মরত রয়েছেন। ভেটেরিনারি মাঠ সহকারী তিনটি পদের বিপরীতে আছেন মাত্র দুইজন। কৃত্রিম প্রজননকর্মী দুটি, অফিস সহকারী একটি, ড্রেসার কর্মী একটি ও পিয়নের একটি পদ শূন্য রয়েছে।

আরও পড়ুনঃ  পরিবহন থেকেও ছড়িয়ে পড়ছে করোনা

উপজেলা খামার সমিতির সভাপতি নাছির উদ্দিন অপু বলেন, সোনাগাজীতে বিভিন্ন সময় দুর্যোগের কারণে আমরা খামারিরা ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হই। উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাসহ অনেকেই নেই। তা ছাড়া চিকিৎসকও পাওয়া যায় না।

সোনাগাজী উপজেলা ভারপ্রাপ্ত প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. কল্লোল বড়ুয়া বলেন, দীর্ঘ ১০ মাস উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার পদটির ভারপ্রাপ্ত দায়িত্বে আছি। এ ছাড়া ১১টি পদের বিপরীতে মাত্র আমরা চারজন লোক কর্মরত আছি। কাজের অনেক চাপ। সব কাজ সময়মতো করা সম্ভব হচ্ছে না।

ফেনী জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আনিছুর রহমান জানান, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার বিষয়টি সরকারের বিষয়। এ ছাড়া অন্য পদগুলো শুধু সোনাগাজী উপজেলা নয়, ফেনী জেলাসহ দেশে অনেক অফিসেই শূন্য। সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, যাতে দ্রæত এর সমাধান হয়।

আনন্দবাজার/এম.আর

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আজকের পত্রিকা
ই-পেপার
শেয়ার বাজার
পন্য বাজার