আগস্ট ১৯, ২০২২

৩ দিনে ৫ কনটেইনার মদ জব্দ-

চট্টগ্রাম বন্দরে ৫৭ কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকির চেষ্টা

চট্টগ্রাম বন্দরে ৫৭ কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকির চেষ্টা

চট্টগ্রাম বন্দরে আরও দুই কনটেইনার মদ জব্দ করেছে কাস্টসের এআইআর বিভাগ। এর একটি চালানে ঘোষণা ছিল টেক্সচারড ইয়ার্ন অপরটিতে র মেটারিয়ালস পলিপ্রপিলিন রেসিন। এ নিয়ে তিন দিনের ব্যবধানে চট্টগ্রাম বন্দরে পাঁচ কনটেইনার মদ জব্দ হলো। আর এতে প্রায় ৫৭ কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকির অপচেষ্টা হয়েছে।

সবশেষ গত সোমবারদুপুরে চট্টগ্রাম বন্দরে আটক দুই কনটেইনার মদের চালানে ২০ কোটি ৪৮ লাখ টাকা রাজস্ব ফাঁকির অপচেষ্টা হয়েছে। রাত ১২টার দিকে আটক দুই মদের চালানে শতভাগ কায়িক পরীক্ষা শেষে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের ডেপুটি কমিশনার (এআইআর শাখা) সাইফুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এতে বলা হয়, মিথ্যা ঘোষণায় আনা আটক মদের চালান দু’টিতে ২ হাজার ৮৫৮টি কার্টনে মোট ৩১ হাজার ৪৯২ দশমিক ৫ লিটার মদ পাওয়া যায়। যার আনুমানিক শুল্কায়নযোগ্য মূল্য ৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। মদের পাশাপাশি একটি কনটেইনারে ৫৩টি বস্তায় ৫৩ হাজার প্যাকেটে মোট ১০ লাখ ৬০ হাজার শলাকা আমদানি নিষিদ্ধ বিদেশি সিগারেট পাওয়া যায়। চালান দুটিতে মিথ্যা ঘোষণায় ২০ কোটি ৬৮ লাখ টাকা সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ার অপচেষ্টা হয়েছে। এর আগে সোমবার দুপুরে চালান দুটি মিথ্যা ঘোষণায় মদ আনার বিষয়টি নিশ্চিত হন কাস্টমস কর্মকর্তারা।

চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের ডেপুটি কমিশনার (এআইআর) মো. সাইফুল হক বলে, আটক মদের চালান দুটির আমদানিকারকদের মধ্যে একটি বাগেরহাট জেলার মোংলা ইপিজেডস্থ ভিআইপি ইন্ডাস্ট্রি বাংলাদেশ প্রাইভেট লিমিটেড। এ প্রতিষ্ঠানটি চায়না থেকে সুতা আমদানির ঘোষণা দিয়ে মাদক আমদানি করেছে।

আরও পড়ুনঃ  হারানো মোবাইল-প্রতারণার অর্থ উদ্ধার

একইভাবে নীলফামারী জেলার উত্তরা ইপিজেডস্থ আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ডং জিন ইন্ডাস্ট্রিয়াল (বিডি) কোম্পানি লিমিটেড। চায়না থেকে কাঁচামাল আমদানি করার ঘোষণা দিয়ে মদ এনেছে।

এর আগে গত রবিবার দুপুরে চট্টগ্রাম বন্দরে চায়না থেকে পলিস্টার আমদানির মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে ১৫ হাজার ২০৪ লিটার বিদেশি মদ আমদানি করেছে নীলফামারী জেলার উত্তরা ইপিজেডের আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ডং জিন ইন্ডাস্ট্রিয়াল (বিডি) কোম্পানি লিমিটেড। এ জালিয়াতির মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি ১২ কোটি ৪৫ লাখ টাকা রাজস্ব ফাঁকি দেয়ার অপচেষ্টা করে।

শনিবার চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে চীন থেকে মেশিনের সুতা আর ববিনের নামে আনা দুই কনটেইনারের পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষ হয়েছে। দুটি কনটেইনারের মধ্যে ৩১ হাজার ৬২৫ লিটার বিদেশি মদ পাওয়া গেছে। আইপি জালিয়াতি করে বন্দর থেকে ছাড়িয়ে নেয়া এই দুই চালানে ২৪ কোটি ৭০ লাখ টাকা শুল্ক ফাঁকির চেষ্টা করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.

ই-পেপার
প্রথম পাতা
খবর
অর্থ-বাণিজ্য
শেয়ার বাজার
মতামত
বিশ্ব বাণিজ্য
ক্যারিয়ার
খেলার মাঠ
প্রযুক্তি বাজার
শিল্পাঞ্চল
পণ্যবাজার
সারাদেশ
শেষ পাতা