কমেছে সবজি, ডিম-আলুর দাম

সবজির বাজার কিছুটা সহনশীল হয়ে এলেও এখনো বেশ কিছু পণ্যের দাম চড়া। এর মধ্যে তেলের দাম অন্যতম। এসব পণ্যের দাম চলতি সপ্তাহে বেড়েছে। তবে নতুন আলুসহ পেঁয়াজ-রসুন, আদার দাম কমেছে।

সবজির বাজার কিছুটা সহনশীল হয়ে এলেও এখনো বেশ কিছু পণ্যের দাম চড়া। এর মধ্যে তেলের দাম অন্যতম। এসব পণ্যের দাম চলতি সপ্তাহে বেড়েছে। তবে নতুন আলুসহ পেঁয়াজ-রসুন, আদার দাম কমেছে।

আজ (৮ জানুয়ারি) রাজধানীর কারওয়ান বাজার, খিলগাঁও ও মালিবাগ কাঁচা বাজারসহ বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সপ্তাহ ব্যবধানে এসব বাজারে ১০ টাকা কমে নতুন আলু ৩০ টাকা, দেশি পেঁয়াজ ৪০ থেকে ৪৫ টাকা, আমদানিকৃত পেঁয়াজ ২৫-৩০ টাকা, দেশি রসুন ১০০ থেকে ১২০ টাকা, চায়না রসুন ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া ১০ থেকে ১৫ টাকা কমে দেশি আদা ১৮০ থেকে ২০০ টাকা ও চায়না আদা ১৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

খুচরা বাজারে প্রতিপিস ফুল কপি ও বাধা কপি আকার ভেদে ২৫ থেকে ৩০ ও ব্রকলি ৫০ টাকা, শিমের কেজি ৪০ থেকে ৫০, কাঁচা টমেটো ৪০, পাকা টমেটো ৫৫ থেকে ৬০, শালগম ৩০ থেকে ৪০, করলা ৮০, বেগুন ৫০, ঢেঁড়স ৭০, মুলা ১৮ থেকে ২০, চিচিঙ্গা ও ঝিঙা ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া পেঁপে ৩০ টাকা, দেশি শশা ৫০, বরবটি ৮০, গাজর ৪০, লাউ প্রতি পিস ৫০, মিষ্টি কুমড়া কেজি ৪০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে কারওয়ান বাজারে মান ভেদে প্রতি পাল্লা (৫ কেজি) আলু ৮০ থেকে ১০০ টাকা, টমেটো ২০০ টাকা, করোলা ১২০ থেকে ১৩০ টাকা, দেশি আদা ৬০০ টাকা, ভারতীয় আদা ৩০০ টাকা, পুরান পেঁয়াজ ২৬০ ও নতুন পেয়াজ ১৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া দেশি ডাল ১০০, ক্যাঙ্গারু ১২০, ভারতীয় মোটা ডাল, ৬৫ থেকে ৭০, মুগডাল ১৩০, মসুরী ১৩০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। খুচরা বাজারে মিনিকেট চাল ৬২ টাকা, নাজির ৬৫ টাকা, আটাশ ৫০ টাকা, পাইজাম ৪৮ টাকা, হাসকি ৫০-৫২ টাকা, মোটা চাল ৪০ টাকা, ও খুদের চাল ৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

সপ্তাহ ব্যবধানে চার থেকে পাঁচ টাকা বৃদ্ধি পেয়ে বাজারে খোলা সয়াবিন তেল লিটার প্রতি বিক্রি হচ্ছে ১১৫ টাকা, সরিষার তেল ২০০ টাকা ও নারিকেল তেল ৪১০ টাকা। তেলের দাম বৃদ্ধি কারণ জানতে চাইলে খিলগাঁও কাঁচা বাজারের খুচরা বিক্রেতা রনজিৎ অর্থসূচককে বলেন, এখন মিলে সরিষা শেষের দিকে। তাই শেষ সময়ে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। কিছুদিন পর সরিষা ঘরে উঠলে দাম কমে আসবে।

গত সপ্তাহের মতই বাজারে বয়লার মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ১২৫ থেকে ১৩০ টাকা, পাকিস্তানি মুরগি ২১০ টাকা আর লেয়ার মুরগি ২০০ টাকা। এসব বাজারে গরুর মাংসের কেজি ৫৫০ টাকা ও খাসির মাংস ৮০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। সপ্তাহ ব্যবধানে ডজনে ৫ টাকা কমে বয়লার মুরগির ডিম বিক্রি হচ্ছে ৮৫ টাকা, হাঁসের ডিম ১৪০ টাকা, পাকিস্তানি মুরগীর ডিম ১০০ টাকা।

এছাড়া এসব বাজারে প্রতি কেজি রুই ২২০ থেকে ২৫০ টাকা, তেলাপিয়া ১০০ থেকে ১২০, বড় পাবদা ৩০০, চিংড়ি ৫০০, ছোট চিংড়ি ৪৫০, সিং বড় ৪০০, সিং ছোট আড়াইশো, পাঙাশ ১৫০, কই বড় ১৮০, ছোট ১৬০, বড় পুটি ১৬০, টেংরা ৪০০, বড় সাইজের ইলিশ ৯০০, মাঝারি ৮০০, ছোট ৭০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

আনন্দবাজার/শহক

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *