নভেম্বর ২৮, ২০২১

অলটেক্সের মজুদ পণ্যে নিরীক্ষকের আপত্তি

অলটেক্সের মজুদ পণ্যে নিরীক্ষকের আপত্তি

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ‘জেড ক্যাটাগরির’ কোম্পানির অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজের আর্থিক হিসাবে আপত্তি জানিয়েছেন নিরীক্ষক। কোম্পানিটির ২০২০-২১ অর্থবছরের আর্থিক হিসাব নিরীক্ষায় এ আপত্তি জানান।

নিরীক্ষক জানান, সুযোগের সীমাবদ্ধতার কারণে অলটেক্সের আর্থিক হিসাবে প্রদত্ত ৩৩ কোটি ৯৫ লাখ টাকার মজুদ পণ্যের সত্যতা যাচাই করা যায়নি। এদিকে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ ২০১৫ সালে জমি পূণমূল্যায়ন করেছিল বলে জানিয়েছেন নিরীক্ষক। কিন্তু আন্তর্জাতিক হিসাব মান (আইএএস)-১৬ অনুযায়ি, তারই ধারবাহিকতায় পরবর্তী ৩-৫ বছরের ব্যবধানে নিয়মিত পুণঃমূল্যায়ন করা দরকার হলেও কোম্পানি কর্তৃপক্ষ তা করেনি।

অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ কর্তৃপক্ষ আইএএস-১২ অনুযায়ি ডেফার্ড টেক্স গণনা করেনি বলে জানান নিরীক্ষক। যে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ মূসক দাখিল করেনি। যাতে করে কোম্পানিটির ওপর ভ্যাট ও এসডি আইন অনুযায়ি জরিমানা করা হতে পারে।

এদিকে, অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ সর্বশেষ জুন ২০১৫ সালে বিনিয়োগকারীদের ১০ শতাংশ ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। এর মধ্যে চার শতাংশ ক্যাশ ও ছয় শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড রয়েছে। এরপর কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের কোনো ডিভিডেন্ড দেয়নি।

এ প্রসঙ্গে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ জানায়, লোকসানের কারণে কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ড দিতে পারছে না। ২০১৬ সালে সামান্য লাভ হলেও ডিভিডেন্ট দেবার মতো অবস্থায় ছিল না। এরপর ২০১৭ থেকে কোম্পানিটি লোকসান মুখে পরে। তারপর থেকে কোম্পানিটি লোকসান বৃত্ত থেকে বের হয়ে আসতে পারেনি।

সবশেষ কোম্পানিটির চলতি অর্থবছরের (২০২১-২০২২) প্রথম তিন মাসে (জুলাই টু সেপ্টেম্বর) শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ১ দশমিক ২৪ টাকা। যার আগের অর্থবছরের একই সময়ে লোকসান ছিল ১ দশমিক ১৫ টাকা। ২০২১ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৪ দশমিক ৬২ টাকায়।

ডিএসইর ওয়েবসাইট সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৬ সালে পুঁজিবাজারে আসা ‘জেড ক্যাটাগরির’ অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজের অনুমোদিত মূলধন একশত কোটি টাকা। পরিশোধিত মূলধন ৫৫ কোটি ৯৬ লাখ ৮০ টাকা। শেয়ার সংখ্যা ৫ কোটি ৫৯ লাখ ৬৮ হাজার শেয়ার। গত বৃহস্পতিবার কোম্পানিটির শেয়ার দর দাঁড়িয়েছে ১৬ দশমিক ২০ টাকা। কোম্পানিটির রিজার্ভে রয়েছে ৩২ কোটি ৩৪ লাখ টাকা। জুন ২০২০ সমাপ্ত হিসাব অর্থবছর হিসেবে কোম্পানিটির স্বল্পমেয়াদে লোন রয়েছে ২৪৩ কোটি ১৮ লাখ এবং দীর্ঘমেয়াদে ৩২ কোটি ২২ লাখ টাকা। কোম্পানির মোট শেয়ারের ৪০ দশমিক ৭৪ শতাংশ মালিকানা রয়েছে উদ্যোক্তা পরিচালকদের। এছাড়া প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ১১ দশমিক ৪৭ শতাংশ ও বাকি ৪৭ দশমিক ৭৯ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে।

আনন্দবাজার/শহক

Print Friendly, PDF & Email

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আজকের পত্রিকা
ই-পেপার
শেয়ার বাজার
পন্য বাজার